জুরাছড়িতে বিদ্যুতের দাবীতে বিক্ষোভ-সমাবেশ

জুরাছড়ি প্রতিনিধি হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Untitled-02

লোড শেডিংয়ের নামে ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখার প্রতিবাদে শুক্রবার রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলাবাসী বিক্ষোভ-মিছিল ও সমাবেশ করেছে। সমাবেশ থেকে বক্তারা  আগামী ৭২ ঘন্টার( রবিবার দুপুর ১১টা) মধ্যে  প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে অনিদিষ্টিকালের জন্য  হরতালের মত কঠোর কর্মসূচীর দেয়ার হুমকি দিয়েছেন।

বিদ্যুৎ গ্রাহক সংগ্রাম কমিটির উদ্যোগে  রোববার সকালের দিকে কোন প্রকার কর্মসূচি ঘোষনা ছাড়াই জুরাছড়ি উপজেলা সদর ইউনিয়নে কয়েক শত লোকজন জড়ো হন। পরে বিভিন্ন দাবী দাওয়া সম্বলিত ফেস্টুন ও ব্যানার নিয়ে বিক্ষোভ-মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি উপজেলার থানা, যক্ষা বাজার, ধামাইপাড়ায়  প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে সমাবেশ করা হয়। সমাবেশে  উপজেলা বিদ্যুৎ গ্রাহক সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক জাপানী বিজয় দেওয়ানের সভাপতিত্বে বক্তব্যে দেন বিদ্যুৎ গ্রাহক সংগ্রাম কমিটির নেতা জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা, মহারঞ্জন চাকমা প্রমূখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, দীর্ঘ চার যুগ প্রতিক্ষার পর কাপ্তাই থেকে জুরাছড়িবাসী বিদ্যুৎ সংযোগ পেলেও পাওয়া যায়নি কাংখিত সুযোগ-সুবিধা। ২৪ ঘন্টার মধ্যে ২০ ঘন্টার বিদ্যুৎ এ লোডশেডিং থাকে। ফলে  এলাকাবসীর দুভোর্গ সীমাহীন বেড়েছে।

সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করেন, কাপ্তাই উপজেলা থেকে নিয়োজিত টেকনিশিয়নরা দায়িত্ব অবহেলা ও উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের উদাসিনতার কারণে জুরাছড়িবাসী এমন ভোগান্তি শিকার হচ্ছেন। বিলাইছড়িতে সরকারী দায়িত্ব প্রাপ্ত টেকনিশিয়নরা  বছরের পর বছর কর্মস্থলে না গিয়ে জৈনক শাহ আলম ও জামাল নামের দুই ব্যাক্তিকে দিয়ে সব রকম কাজ চালানা হচ্ছে। ফলে এ দুই ব্যাক্তি বিগত বিশ্ব কাপ ফুটবল খেলার সময় থেকে লোডশেডিংয়ের নামে বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন করে দিয়ে গ্রাহকের কাছে উৎকোচ আদায় করছেন। যা ৩টি মোবাইল নম্বরে  (০১৮২২৮৯৯৯৮,০১৮২৮৮০৪৩২৯,০১৮২৩৯৩৯০৮২) ৩ হাজার টাকা বিকাশ করলে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া  হয়েছিল। এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে মুঠোফোনে কিংবা সরাসরি অভিযোগ করা হলেও কোন সুরাহা মিলেনি।

বিদ্যুৎ গ্রাহক সংগ্রাম কমিটির নেতা জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা বলেন, বর্তমান সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য কিছু অসাধু কর্মচারী এমন কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এদেরকে চিহিৃত করে অপসারন করার জন্য তিনি জোর দাবি জানান।

উপজেলা বিদ্যুৎ গ্রাহক সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক জাপানী বিজয় দেওয়ান আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে নিয়মিত বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া না হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য উপজেলার সকল সরকারী-বেসরকারী অফিস, গাড়ী ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেয়া হবে বলে হুশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly