জমে উঠেছে রাঙামাটির ঈদ বাজার

বিশেষ প্রতিনিধি, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Rangamati Eid Bazar-pic-01

রমজানের প্রায় শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে রাঙামাটি শহরের ঈদের বাজার। রমজানের শুরুতেই ঈদ বাজারে ক্রেতাদের তেমন একটা ভিড় দেখা না গেলেও ২০ ও ২১ রোজার পর থেকে শহরের সকল মার্কেট ও শপিংমলগুলোতে পুরোদমে কেনাকাটা জমে উঠেছে। সকাল থেকে রাত পর্ষন্ত অবদি পর্ষন্ত ক্রেতারা নিজেদের পছন্দের জামা-কাপড় ও নানান পণ্য ক্রয় ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন। তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর ঈদের জামা-কাপড়ের বেশ চড়া দামের রয়েছে ক্রেতাদের অভিযোগ। তারপরও ঈদের কেনাকাটা বলেই ক্রেতারা বেশী দাম দিয়ে কিনে আনন্দে বাড়ী ফিরছেন।

রাঙামাটি শহরের প্রধান বাণিজ্যিক কেন্দ্র বনরুপার বিএম শপিং কমপ্লেক্স, আলিফ মার্কেট, আইসিআর সুপার মার্কেট, মোহাম্মদীয়া মার্কেটে ও লাকী প্লাজায় ঘুরে দেখা গেছে সকল বয়সী ক্রেতাদের এসব মার্কেটে উবছে পড়ার ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। ক্রেতারা নিজেদের পছন্দের মত জামা-কাপড় কেনাকাটায় ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন। তাই ব্যবসায়ীদের একটুও দম ফেলার ফুরসৎও পাচ্ছেন না। অসংখ্য ক্রেতার আনাগোনা ও সরব উপস্থিতিতে যেন এই মার্কেটগুলোতে উৎসবের আমেজে পরিণত হয়েছে। ঈদ ্উপলক্ষে দোকানীরা দোকানে সাজিয়ে রেখেছেন নতুন নতুন নানান ডিজাইনের কাপড়-চোপড়সহ নানান পণ্য।

রাঙামাটি বনরূপা বিএম শপিংকমপ্লেক্সের দেশ দোকানের মালিক মোঃ কামাল হোসেন জানায়, ঐতিহ্যবাহী উন্নতমানের দেশীয় সংস্কৃতির পোশাক গুলো আমার দোকানে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে এবং এই সব পোশাকের নির্ধারিত মূল্য বেঁেধ দেয়া হয়েছে। তাই ক্রেতারা তাদের বাজেট অনুযায়ী ক্রয় করতে পারছেন। তবে আগের বারের চেয়ে এবার জামাকাপড়ের দাম একটু বেশী। এসব মার্কেট ও বিপনী বিতানগুলোতে মহিলাদের জন্য নানান বাহারি রঙের শাড়ি, থ্রি পিস, ফতোয়া, ছেলেদের আকর্ষণীয় পাঞ্জাবি, শার্ট, প্যান্ট, বাচ্চাদের জন্য নানা ডিজাইনের পোশাক। পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন রকমের সুতি ও জর্জেটের থ্রী।এসব থ্রী পিসের মূল্য ৭ হাজার থেকে ১৬ হাজার টাকা পর্ষন্ত রয়েছে। মহিলাদের আকর্ষণীয় নামের বাহারি শাড়ি মধ্যে রয়েছে-জামদানী, তাজমহল, গোপাংশিল, বাজি, চেন্নাই, আশিকা-টু, ফুলকি মেরাক্কেলসহ ইত্যাদি। আর এসব শাড়ি মূল্য ৪ হাজার থেকে সাড়ে ১২ হাজার টাকা পর্যন্ত। আবার স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত ও তৈরীকৃত তাঁত বস্ত্রের মধ্যে ছেলে-মেয়ে ও বাচ্ছাদের জন্য এবারে নতুন নতুন ডিজাইনের বস্ত্রও এসেছে। এসব বস্ত্র সামগ্রিও ক্রেতা সাধারণের আকর্ষণ কেড়েছে। মহিলাদের জন্য রয়েছে বাহারী অলংকার ও কসমেটিকসহ ইত্যাদি পণ্য।

অপরদিকে ক্রেতাদের টানতে প্রতিবছরের ন্যায় এবারও লাকী কুপনের আয়োজন করেছে বিএম শপিং কমপ্লেক্স ব্যবসায়ী কল্যান সমিতি। শপিং কমপ্লেক্স-এর যে কোনো দোকান থেকে ৫শ টাকার উর্দ্ধে কেনাকাটা করলে ক্রেতাদের দেয়া হচ্ছে ফ্রি কুপন লটারী

রাঙামাটি বনরূপা ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এম এস জাহান লিটন জানান, মার্কেটগুলো আসা ক্রেতারা যাতে সুলভ মূল্যে তাদের পছন্দ জিনিস কিনতে পারে তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তাছাড়া ক্রেতারা যাতে কোন ধরনের হয়রানী শিকার নায় হয় সে দিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে। এছাড়া মার্কেটগুলোতে নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

রাঙামাটি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ জানান, ঈদকে সামনে রেখে রাঙামাটি জেলার আইন শৃংঙ্খলা ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশের বিশেষ টিম কাজ করছে। তাছাড়া ঈদের মার্কেটগুলোতে পর্যাপ্ত পুলিশ পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। তাছাড়া যাতায়ত ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে  পুলিশের কড়া নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly