স্কুল শিক্ষককে হত্যা ও তিনটি স্থানে সিরিজ গুলি বর্ষনের ঘটনার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ছে

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Hartal-01

সন্ত্রাসী হামলায় মানিকছড়িতে স্কুল শিক্ষক ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি চিংসা মং চৌধুরী হত্যা ও পানছড়িতে দুই বাঙ্গালীসহ ৪ জনকে গুলি করে হত্যার চেষ্টার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ছে।  সোমবার মানিকছড়িতে স্কুল নিহত ও  পানছড়িতে বাঙালী দম্পতিকে গুলি করে আহত করার প্রতিবাদে হরতাল ও সড়ক অবরোধ পালিত হয়েছে।

গত ৬ ডিসেম্বর স্কুল শিক্ষককে হত্যা ও তিন উপজেলায় সিরিজ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার পর খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগ,বাঙ্গালী ভিত্তিক সংগঠন পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ, নাগরিক কমিটি, মারমা উন্নয়ন সংসদ, খাগড়াছড়ি সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ নিমূল কমিটি, সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিকসহ স্কুলের শিক্ষক  ও বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে মাঠে নেমেছে। সোমবার স্কুল শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে সর্বদলীয় সচেতন নাগরিক কমিটির ব্যানারে মানিকছড়ি উপজেলায় সকাল-সন্ধ্যা শান্তিপুর্নভাবে হরতাল পালিত হয়েছে। হরতাল চলাকালে খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম সড়কের গাড়ী চলাচল বন্ধ ছিল। মহালছড়ি উপজেলায় একই দাবিতে সড়ক অবরোধ পালিত হয়েছে।  বিভিন্ন বিদ্যালয়ের উদ্যোগে মানববন্ধন, ক্লাশ বর্জন ও ক্যালব্যাজ ধারন কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। এছাড়া বাঙালী দম্পক্তিকে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদ পানছড়িতে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করেছে।  অব্যাহত সন্ত্রাস ও চাদাঁবাজি বৃদ্ধির প্রতিবাদে ও স্কুল শিক্ষক  হত্যার প্রতিবাদে মঙ্গলবার খাগড়াছড়িতে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে জেলা সন্ত্রাস ও চাদাঁবাজি প্রতিরোধ কমিটি। সূত্র মতে, স্থানীয় প্রশাসন হত্যাকান্ডের তিন দিন অতিবাহিত হলেও এখনও ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন বা জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। ফলে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে।

এদিকে, এসব কর্মসূচি পালনরত সংগঠনের পক্ষ থেকে এ হত্যাকান্ড ও গুলিবর্ষনের ঘটনার জন্য ইউপিডিএফকে দায়ী করেছে। তবে ইউপিডিএফ‘র অঙ্গসংগঠন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয়  সভাপতি মাইকেল চাকমা এক বিবৃতিতে এ ঘটনাকে দুঃখ জনক উল্লেখ করে এ হত্যাকান্ড ও গুলি বর্ষণের ঘটনায় ইউপিডিএফ জড়িত নয় বলে দাবি করেছেন।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাতে জেলার মানিকছড়িতে সন্ত্রাসীদের ব্রাশ ফায়ারে মানিকছড়ি কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চিংসা মং চৌধুরী (৫৫) নিহত হয়। এসময় গুলিবিদ্ধ হন-পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (সন্তু গ্রুপ) উপজেলা সভাপতি মংসাজাই মারমা প্রকাশ জাপান বাবু। এছাড়া একই রাতে সন্ত্রাসী হামলায় পানছড়িতে রমজান আলী (৫৫) ও তার স্ত্রী মনোয়ারা (৪৫) ও মাটিরাঙ্গার ভূঁইয়াপাড়ায় জেএসএসকর্মী (সন্তু) আশুতোষ ওরফে মিলন ত্রিপুরা গুলিবিদ্ধ হয়। গুলিবিদ্ধ দুইজন খাগড়াছড়ি সদরে ও অপর দুইজন চমেকে চিকিৎসাধীন।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly