সরকার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীদের নিজস্ব মাতৃভাষা শিক্ষা চালু করেছে—- দীপংকর তালুকদার

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

ba-1

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার এমপি বলেছেন, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠী যাতে তাদের নিজস্ব ভাষায় শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে তার জন্য বর্তমান সরকার মাতৃভাষার শিক্ষা পাঠ্যক্রম চালু করেছে। বর্তমানে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র  গোষ্ঠীর মাতৃভাষা শিক্ষা পাঠ্যক্রম চালু করা হয়েছে। আগামীতে সব কয়টি মাতৃভাষা শিক্ষা পাঠ্যক্রম চালুর মাধ্যমে পার্বত্য অঞ্চলের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীদের মাতৃভাষা পাঠদানের ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন।

আজ বুধবার(১৩ নভেম্বর) রাঙামাটির সদর উপজেলার বসন্ত মোন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিার্থীদের বিনামূল্যে স্কুল ড্রেস বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

বসন্ত মোন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বালুখালী ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে পরিষদ চেয়ারম্যান বিজয় গিরি চাকমা। বক্তব্যে দেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ সাইফ উদ্দিন আহম্মেদ, বরকল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সন্তোষ কুমার চাকমা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা রহমান শম্পা প্রমুখ।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী বরকল উপজেলার দুর্গম এরাবুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৪৪ নং মাইচছড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পরে মগবান মার্মা পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে স্কুল ড্রেস বিতরণ করেন।

প্রতিমন্ত্রী তার বক্তব্যে আরও বলেন, আওয়ামীলীগ সভানেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্য অঞ্চলের শিার মান বৃদ্ধির ক্ষেত্রে জোর দিয়েছে। তার নির্দিশে পার্বত্য অঞ্চলের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীর ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার জন্য স্ব স্ব মাতৃভাষা শিক্ষা কার্যক্রম চালু করা হয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছা ছিলো বলেই পার্বত্য অঞ্চলে আজ উন্নয়নের জোয়ার বইছে। পার্বত্য অঞ্চলে শিার আলো যাতে প্রতিটি ঘরে ঘরে পৌছে যায় এবং ঝড়ে পড়ার হার কমে আসে তার জন্য বছরের প্রথম দিন থেকে ছাত ছাত্রীদের হাতে নতুন পাঠ্য বই তুলে দেয়া হচ্ছে।

ba-2

প্রতিমন্ত্রী এসময় রাঙামাটি জেলা প্রশাসককে আবারো সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল তার নতুন ধারণা হিসাবে স্কুল ছাত্র ছাত্রীদের স্কুল ড্রেস বিতরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তার উদ্যোগে সাধুবাদ জানিয়ে আমরা এই কাজকে এগিয়ে নিতে পারছি। তিনি বলেন, জেলা প্রশাসক প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্কুল ড্রেস বিতরণের কার্যক্রমটি তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রী এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে আগামী বছর থেকে এই কার্যক্রম হাতে নেয়ারও পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly