লক্ষীছড়িতে সাংবাদিক মোহাম্মদ আলী ও অপর দুই ব্যক্তির বাগান থেকে দশ হাজার চারা গাছ কেটে নিয়ে গেছে সন্ত্রাসীরা

বিশেষ প্রতিনিধি, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Khag mapটানা অবরোধ ও হরতালের সুযোগে সন্ত্রাসীরা মঙ্গলবার ভোর রাতে খাগড়াছড়ির লক্ষীছড়ি উপজেলার ডিপি নোয়া পাড়ার মানিকছড়ি এলাকা থেকে কমপক্ষে অর্ধ কোটি টাকার মূল্যের ১০ হাজার গাছের চারা কেটে নিয়ে গেছে।

জানা গেছে, খাগড়াছড়ির লক্ষীছড়ি উপজেলার ডিপি নোয়া পাড়ার মানিকছড়ি এলাকায় দৈনিক জনকণ্ঠের রাঙামাটি প্রতিনিধি মোহাম্মদ আলী ও অপর দুই পাহাড়ির পৈত্রিক ভিটা মাটিতে ১৫ থেকে ২০ বছর আগে ২০একর জাগায় গাছের চারা রোপন করেছিলেন। মঙ্গলবার ভোর রাতে সুরুজ মিয়া , জাহেদ, মোশারফ ,জাকির ও সালামের নেতৃত্বে ২০ থেকে ২৫ জনের একটি সন্ত্রসী দল বাগানের সকল প্রকার গাছ কেটে নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীরা দূর্গমতার সুযোগ নিয়ে রাতে আধারে সন্ত্রাসীরা চারা গাছ কেটে নিয়ে নিকটস্থ ইট ভাটিতে বিক্রি করে দিচ্ছে। মঙ্গলবার ভোর রাতে এসে কেউ বুঝে উঠার আগেই সন্ত্রাসীরা আবার বাগান কেটে সাবার করে ফেলে। চিহিৃত এসব সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা থাকার পর ওই এলাকায় শক্তি ধর হওয়াতে তাদের বিরুদ্ধে কোন কিছু বলার সাহস পায়না কেউই। ফলে এ উপজেলায় অনেকেই বাগানের সব গাছ হারিয়ে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন।

অপরদিকে এ ঘটনায় বাগান মালিকেরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ার পাশাপাশি পরিশে ওপর বিরুপ প্রভাব পড়তে পারে বলে পরিবেশবাদীরা মনে করছেন।

একাধিক সূত্র জানায়, এসব সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে ভূয়া কিছু কাগজ হাতে নিয়ে এলাকায় ঘুরে বেড়ায়। যে সব বাগানের গাছ একটু বড় হয় জানতে পারে ওই বাগানে গিয়ে তারা গাছ কাটতে শুরু করে দেয়। এতে কেউ প্রতিবাদ করলে জমি তাদের বলে দাবি করে বসে। এভাবে স্থানীয় প্রশাসনকে তারা প্রতিনিয়ত ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তি করে যাচ্ছে।

নাম না প্রকাশের অনিচ্ছুক এক নেতা জানান, পাহাড়ে-বাঙ্গালী পূর্ণবাসেনের ৩০ বছর পর এসে কোন ধরণের আইন কানুনের তোয়াক্কা না করে একের বাগান অপরে কেটে নেয়া সত্যই দূঃখজনক।

লক্ষিছড়ি থানান ভারপ্রান্ত কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বাগান বাগান থেকে গাছ কাটার অভিযোগে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly