২৫ সদস্যের নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি গঠিত


র‌্যাবের নতুন ‘পাহাড়ি ব্যাটেলিয়ন’, যুব ফোরামের তীব্র প্রতিবাদ

 ডেস্ক রিপোর্ট, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

DYF committtee1hillbd24.com

 গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের ৪র্থ কেন্দ্রীয় কাউন্সিল শনিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে।  এতে কাউন্সিলের মাধ্যমে মাইকেল চাকমাকে সভাপতি, অংগ্য মারমাকে সাধারণ সম্পাদক, জিকো ত্রিপুরাকে সাংগঠনিক সম্পাদক ও রিপন চাকমাকে দপ্তর সম্পাদক করে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করা হয়।

তিন পার্বত্য জেলায় র‌্যাবের আলাদা ব্যাটালিয়ন গঠনের সিদ্ধান্তের সংবাদে তীব্র উদ্বেগ প্রকাশ করে নিন্দা জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার পাহাড়ি নাম দিয়ে পাহাড়িদের নির্যাতন চালানোর উপনিবেশিক ঘৃণ্য পন্থা গ্রহণ করেছে । পার্বত্য চট্টগ্রাম এমনিতে সামরিকায়িত, গোটা পার্বত্য চট্টগ্রামই সেনা ছাউনিতে পরিণত হয়েছে। লোমহর্ষক লোগাঙ হত্যাকা-সহ প্রত্যেকটি হামলা-ধ্বংসের সাথে নিরাপত্তা বাহিনী ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থার সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। র‌্যাবের নতুন ব্যাটেলিয়ন গঠনের উদ্দেশ্য পার্বত্য চট্টগ্রামে চলমান দমন-পীড়ন আরও তীব্রতর করার দূরভিসন্ধি ছাড়া আর কিছু নয়।

ঢাকার মুক্তি ভবনের প্রগতি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে যুব ফোরামের সভাপতি নতুন কুমার চাকমা’র সভাপতিত্বে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ-এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রবি শংকর চাকমা। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি থুইক্যচিং মারমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সহসাধারণ সম্পাদক চন্দনী চাকমাসহ যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। অধিবেশনের শুরুতে অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে যারা শহীদ হয়েছেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। কাউন্সিল অধিবেশনে রাংগামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও চট্টগ্রাম থেে রাজধানী ক ৬০ জন প্রতিনিধি এবং পিসিপি ও এইচডব্লিউএফএর নেতা-কর্মী পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। কাউন্সিল অধিবেশনে কেন্দ্রীয় কমিটি তার কার্য্যক্রমের সাংগঠনিক রিপোর্ট  তুলে ধরে এবং রিপোর্টের উপর উপস্থিত প্রতিনিধিদের আলোচনার পর সর্ব সম্মতিক্রমে হাউজে তা পাস করা হয়।

 সম্মেলেন ইউপিডিএফ সাধারণ সম্পাদক রবি শংকর চাকমা বলেন, প্রত্যেকটি রাজনৈতিক সংগঠনকে সঠিক সময় সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হয়। গণতান্ত্রিক যুব ফোরামকে তাই করতে হবে। ইউপিডিএফ ও তার সহযোগী সংগঠনসমূহকে সরকার-সেনাবাহিনী-আওয়ামী লীগ-বিএনপি ও শাসকগোষ্ঠির সেবাদাস সন্তু চক্রের মোকাবেলা করে পাহাড়িদের অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হচ্ছে। বহু প্রতিকূলতার মধ্যে থেকেই যুব ফোরামকে সাংগঠনিক কাজ এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

দিনব্যাপী সম্মেলন শেষে বিদায়ী কমিটির সভাপতি নতুন কুমার চাকমা মাইকেল চাকমাকে সভাপতি, অংগ্য মারমাকে সাধারণ সম্পাদক, জিকো ত্রিপুরাকে সাংগঠনিক সম্পাদক ও রিপন চাকমাকে দপ্তর সম্পাদক করে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কমিটি হাউজে উপস্থিত প্রতিনিধিবৃন্দের মতামতের জন্য উপস্থাপন করেন। পরে উপস্থিত সকল প্রতিনিধিবৃন্দ সমর্থন জানালে নতুন কমিটি গঠিত হয়। নবগঠিত কমিটিকে শপথবাক্য পাঠ করান বিদায়ী সভাপতি নতুন কুমার চাকমা। নবগঠিত কমিটির সভাপতি মাইকেল চাকমা সদ্য বিদায়ী সভাপতি নতুন কুমার চাকমার হাতে ফুলের তোড়া তুলে দিয়ে সংগঠনের পক্ষ থেকে সম্মান জানান

 –হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly