রোববার খাগড়াছড়ি কাঠ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির নির্বাচন  

জাহাঙ্গীর আলম রাজু, দীঘিনালা, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Aborod

রোববার খাগড়াছড়ি কাঠ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সমিতির সভাপতি, সহ সভাপতি,  সাধারন সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ ও পাঁচজন সদস্যসহ পাঁচটি পদে ভাগ্য পরীক্ষায় লড়াই করছেন ২১জন কাঠ ব্যবসায়ী। সরাসরি ভোটের মাধ্যমে নির্ধারিত হবে তাদের ভাগ্য গননা। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত চলবে ভোট গ্রহন।

রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান, চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী ও ঢাকা জেলার ১৬৫ জন ভোটার প্রয়োগ করবেন তাদের ভোটাধিকার। কাঠ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির এই নির্বাচনকে ঘিরে পর্যটন শহর খাগড়াছড়িতে বইছে উৎসব মুখর পরিবেশ। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী।

কাঠ ব্যবসায়ীদের এ নির্বাচনকে ঘিরে জেলা শহরের হোটেল রেস্তোরাগুলোতে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি রাখা হয়েছে সুস্বাধু হরেক রকম খাবারের ব্যবস্থা। ইতিমধ্যে দূরের অধিকাংশ ভোটার এবং তাদের শুভাকাংখিরা খাগড়াছড়িতে পৌছেছেন।

শুভাকাংখিদের মধ্যে রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দসহ নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিও রয়েছেন। তাদেরই একজন রাঙ্গুনীয়া উপজেলার সরফভাটা ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান। কথা হয় ভ্রমন পিপাষু এই জনপ্রতিনিধির সাথে। তিনি জানান, খাগড়াছড়ি কাঠ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির নির্বাচন উপলক্ষে আমরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি নয়নাভিরাম খাগড়াছড়িতে এসেছি। আসার পর সমিতির প্রার্থী ও ভোটারদের আতিথীয়তা এবং প্রকৃতির অপরুপ দৃশ্য আমাদেরকে মুগ্ধ করেছে।

এদিকে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শনিবার  বিকেলে জেলা শহর ছিল প্রার্থী, ভোটার ও তাদের শুভাকাংখিদের কোলাহলে মুখরিত ছিল। খাগড়াছড়ির নির্বাচিত সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরাও এ সমিতির একজন ভোটার বলে জানা গেছে। তাই কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার ভোটাধীকার প্রয়োগের মাধ্যমে ভোট গ্রহন প্রক্রিয়া শুরু করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন সমিতির নেতারা।

এবার খাগড়াছড়ি কাঠ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জেলা আওয়ামীলীগ নেতা জেলা পরিষদ সদস্য বীর কিশোর চাকমা অটল (চেয়ার) ও বিএনপি নেতা হাজী আবু তৈয়ব (আনারস)। সহ সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোঃ আমিন শরীফ সওদাগর (কাপ পিরিচ), মোঃ মনিরুল ইসলাম ভূইয়া (বই), মোহাম্মদ ইসহাক (হরিণ) ও মোঃ এনায়েত খান লিটন (আম)। সাধারন সম্পাদক পদে তৃতীয় বারের মত প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সমিতির দু’বারের নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক আওয়ামী লীগ নেতা তপন কান্তি দে (তালা চাবি) ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা তরুন ব্যবসায়ী শওকত উল ইসলাম ( দোয়াত কলম)। কোষাধ্যক্ষ পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোঃ নুরনবী সওদাগর (দেয়াল ঘড়ি), আবুল কালাম ভূইয়া (উড়োজাহাজ) ও দীন মোহাম্মদ (মই)। তাছাড়াও সমিতির পাঁচটি সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১০ জন প্রার্থী।

প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে,সমিতির ভোটার সংখ্যা কম হলেও ভোটাররা বিভিন্ন জেলায় অবস্থান করায় জনসংযোগ ও সমর্থন আদায় করতে অনেকটা বেগ পেতে হয়েছে তাদের। গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় দেশের কোথাও এত বড় নির্বাচনী এলাকা কোনো নির্বাচনে নেই বলেও জানান তারা। তারপরও গ্রহন যোগ্যতা এবং দক্ষতা বিবেচনা করে ভোটাররা যদি তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন তা হলে বিজয় অনেকটাই নিশ্চিত বলে সব প্রার্থীই আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

অন্যদিকে শনিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত প্রার্থীদের জনসংযোগ প্রত্যক্ষ কারার পাশাপাশি  কথা হয় সমিতির বেশ ক’জন ভোটারের সাথে। তাদের মধ্যে বিএনপি সমর্থিত মোমিনুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ সমর্থিত বিদ্যুৎ বরন চাকমা ও ইলিয়াছ চৌধুরী জানান, রাজনৈতিক বিবেচনায় নয় ব্যবসায়ী স্বার্থের বিবেচনায় আমরা ভোটাধীকার প্রয়োগ করবো। এক্ষেত্রে কে আওয়ামীলীগ কিংবা কে বিএনপি তা বিবেচনা করার কোনো সুযোগ নেই বলেও জানান তারা।

 দীঘিনালা উপজেলার বিশিষ্ট  কাঠ ব্যবসায়ী হাজী মোঃ জসিম জানান, খাগড়াছড়ি কাঠ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি কাঠ ব্যবসায়ীদের শক্তিশালী একটি প্রতিষ্ঠান। তাই সমিতির উন্নয়ন এবং ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য এ নির্বাচন নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ এবং অর্থবহ। নির্বাচনে রাজনৈতিক কিংবা আঞ্চলিকতা বিবেচনা না করে সমিতির সচেতন ভোটাররা যোগ্য এবং দক্ষ প্রার্থীকেই নির্বাচিত করবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর

Print Friendly