রাঙামাটি সমাজসেবা বিভাগে জনবল সংকটে দাফতরিক কাজ ব্যাহত হচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম
রাঙামাটি জেলার সমাজসেবা বিভাগে জনবল সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে। জেলা কার্যালয়সহ শহর ও উপজেলা অফিসে দীর্ঘদিন ধরে অনকগুলো পদ শূন্য। ফলে জনবল সংকটে এ বিভাগের অফিসগুলোতে দাফতরিক কাজ ব্যাহত হচ্ছে। জেলা সমাজসেবা বিভাগ এ খবর নিশ্চিত করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সমাজসেবা বিভাগের জেলা, শহর ও উপজেলা অফিস মিলে মোট ১৯ পদের মধ্যে কর্মরত ছিলেন ৬ জন কর্মকর্তা। তাদের মধ্যে আরেক কর্মকর্তা বদলির আদেশ পেয়েছেন। বর্তমানে জেলা সমাজসেবা বিভাগের উপপরিচালকসহ ১৪ জন কর্মকর্তার পদ শূন্য। এছাড়া উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কর্মচারীর পদও শূন্য রয়েছে।

সূত্র জানায়, সুদ মুক্ত ঋণ কার্যক্রম পরিচালনাসহ জেলায় মোট ৪৭টি কর্মসূচি নিয়ে কাজ করে সমাজসেবা বিভাগ। অন্য কর্মসূচির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তি, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, প্রতিবন্ধী শনাক্তকরণ, সমন্বিত দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী কার্যক্রম, নিবন্ধীত সামাজিক সংগঠন মনিটরিং ইত্যাদি। কিন্তু জনবল সংকটে এসব কর্মসূচির কাজ করতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে রাঙামাটির সমাজসেবা বিভাগকে।

সূত্রের দেয়া তথ্য মতে, জেলায় সমাজসেবা বিভাগের নিবন্ধীত সংস্থা সংখ্যা ছিল ৩৯৬ টি। সেগুলোর মধ্যে ৫০টি অস্তিত্ববিহীন সংস্থার নিবন্ধন বাতিল করে মন্ত্রণালয়। বাকি ৩৪৬ টি সংস্থার মনিটরিং করে জেলা সমাজসেবা বিভাগ। তবে গত তিন বছর যাবৎ নতুন সংস্থার নিবন্ধন কার্যক্রম ছিল না। বর্তমানে কয়েকটি নতুন সংস্থা নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় রয়েছে।

জেলা সমাজসেবা বিভাগের সিনিয়র অফিস সহকারী দিলীপ চাকমা জানান,জেলায় সমাজসেবা বিভাগের অনেক কাজ। সরকারের সেবামুলক এ বিভাগটি সার্বক্ষণিক জনসেবায় নিয়োজিত। জেলায় মোট ৪৭ কর্মসূচিতে কাজ করে বিভাগটি। কিন্তু বর্তমানে রাঙ্গামাটিতে জনবল সংকটে বিভিন্ন কর্মসূচিতে কাজ করতে গিয়ে সব সময় নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। বিপুলসংখ্যক পদ শূন্য পড়ে থাকায় দাফতরিক কাজে ব্যাহত সৃষ্টি হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, জেলা সমাজসেবা বিভাগের উপপরিচালক পদটি শূন্য। বর্তমানে এর অতিরিক্ত দায়িত্বে কর্মরত আছেন শহর সমাজসেবা কর্মকর্তা আল্পনা চাকমা। উপজেলা কর্মকর্তা ছিলেন দশ উপজেলার মধ্যে শুধু তিন উপজেলায়। এ তিন কর্মকর্তার মধ্যে সদর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শ্যামল চন্দ্র পাল নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় বদলির আদেশ পেয়েছেন। কিন্তু তার পরিবর্তে আর কাউকে পোস্টিং দেয়া হয়নি। এতে তিন উপজেলার মধ্যে এখন শুধু নানিয়ারচর ও কাপ্তাই উপজেলায় সমাজসেবা কর্মকর্তা থাকবেন। বাকি আট উপজেলায় সমাজসেবা কর্মকর্তার পদ শূন্য। এছাড়া সহকারী উপপরিচালক, নিবন্ধন কর্মকর্তা, প্রফেশন কর্মকর্তা, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, ইউসিডি কর্মকর্তা, চিকিৎসা কর্মকর্তা, জেলা শিশু পরিবার কেন্দ্রের উপ-তত্ত্বাবধায়ক পদ শূন্য রয়েছে দীর্ঘদিন।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly