রাঙামাটি আসনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী উষাতন তালুকদার

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম 

u1hillbd24.com

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাঙামাটির ২৯৯নং আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সন্তু লারমার সমর্থিত পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির নেতা উষাতন তালুকদার(হাতি) ৯৬ হাজার ২৩৭ ভোট পেয়ে সাংসদ সদস্য হিসেবে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী আওয়ামীলীগ প্রার্থী ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার(নৌকা) ৭৭ হাজার ৩৮৫ ভোট পেয়েছেন। উষাতন তালুকদার তার প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী দীপংকর তালুকদারকে ১৮ হাজার ৮৫২ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন।

এদিকে, দীর্ঘ ৪১ বছর পর পার্বত্য চট্টগ্রামের অঞ্চলিক রাজনৈতিক দল পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির(জেএসএস) থেকে সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হলেন উষাতন তালুকদার। এর আগে ১৯৭৩ সালের ১৮ মার্চ দেশের প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পার্বত্য চট্টগ্রাম আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির প্রতিষ্ঠা ও অবিসংবাদিত নেতা প্রয়াত মানবেন্দ্র নারায়ন লারমা( এমএন লারমা) বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছিলেন। এরপর দীর্ঘ ৪১ বছর পর তীব্র প্রদ্বিন্ধীর মধ্য দিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য উষাতন তালুকদার।

রোববার(৫জানুয়ারী) ভোট গ্রহন সম্পন্ন হওয়ার পর পর এ আসনের ২০১টি কেন্দ্রের মধ্যে থেকে জেলা নির্বাচন কার্যালয় ১৯৭টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষনা করলেও বাকী দূগর্ম ও হেলিসর্টির ৪টি কেন্দ্রের ফলাফল পেতে দেরী হয়। অবশেষে অনেক প্রতীার পর সোমবার(৬ জানুয়ারী) দুপুরে ৪টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষনা করেন জেলা রির্টানিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল। এর আগে উষাতন তালুকদারের সমর্থক এবং জেএসএস ও তার অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ৪টি কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল জানতে জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের চত্বরের বাইরে ভীড় করেন। পরে জেলা প্রশাসক ও জেলা রির্টানিং কর্মকর্তা ফলাফল ঘোষনাসহ স্বতন্ত্র প্রার্থী উষাতন তালুকদারকে সাংসদ সদস্য হিসেবে বেসরকারীভাবে বিজয়ী ঘোষনা করলে জেএসএস ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা স্থান ত্যাগ করেন।

জেলা প্রশাসন সন্মেলনে কক্ষে আনূষ্ঠানিকভাবে রাঙামাটি আসনের মোট ২০১টি কেন্দ্রের চুড়ান্ত ফলাফল ঘোষনা করেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল। এর পর ফলাফলের শিট বিজয়ী প্রার্থী উষাতন তালুকদারের হাতে তুলে দেন। এ সময় উষাতন তালুকদার তা প্রতিক্রিয়ায় বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপে নির্বাচন অনুষ্ঠিত করায় জেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন তার এই বিজয় রাঙামাটিবাসীর বিজয়। নির্বাচন অনুষ্ঠানে অন্যান্য প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থীরা আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করার কারণে একটা সৃশৃংখল ও শান্তিপুর্নভবে নির্বাচন করা সম্ভব হয়েছে। এর মাধ্যমে এভাবে গণতান্ত্রিক চর্চা হবে এবং সারাদেশে একটা গণতান্ত্রিক পরিবেশ বিরাজ করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। তিনি রাঙামাটি এলাকাবাসীসহ দেশে আপামর জনগনের জন্য পাহাড়ী-বাঙালীসহ সকল মানুষের সেবার করার জন্য দয়া ও আর্শীবাদ কামনা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি গৌতম কুমার চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক শক্তিপদ ত্রিপুরা, তথ্য ও প্রচার সম্পাদক মঙ্গল কুমার চাকমা, উদয়ন ত্রিপুরা প্রমুখ।

অন্যান্য প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীদের প্রাপ্ত ফলাফলঃ
স্বতন্ত্র প্রার্থী ও এমএন লারমা সমর্থিত পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি সুধাসিন্ধু খীসা(বই) প্রাপ্ত ভোট ২৪ হাজার ৩৫২, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও পার্বত্য সমঅধিকার আন্দোলনের নেতা এ্যাডভোকেট আবছার আলী(আনারস) মোট ভোট পেয়েছেন ৫ হাজার ৩৯৫, ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের নেতা সচীব চাকমা (উড়োজাহাজ) মোট ভোট পেয়েছেন ১ হাজার ২৪৩ এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডা. রুপম দেওয়ান(লাঙ্গল) মোট ভোট পেয়েছেন ৯২৪ ভোট।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly