রাঙামাটির রাজ বন বিহারে বৃহস্পতিবার থেকে দুদিনব্যাপী কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠান শুরু হচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

SANYO DIGITAL CAMERA

বৃহস্পতিবার থেকে দুদিনব্যাপী রাঙামাটির রাজ বন বিহারে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দানোত্তম কঠিন চীবর শুরু হচ্ছে। এ ধর্মীয় অনুষ্ঠান ঘিরে রাঙামাটি শহর দৃশ্যত উৎসবের নগরীতে পরিণত হয়েছে। এ অনুষ্ঠানে লক্ষাধিক ধর্মপ্রাণ লোকজন সমবেত হওয়ার আশা করছে আয়োজক কমিটি।

দুদিনব্যাপী রাঙামাটি রাজ বন বিহারের ৪১তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠান মালার মধ্যে রয়েছে বৃহস্পতিবার বিকালে রাজ বন বিহারের পাশেই বেইন ঘর রাজ বন বিহারের আবাসিক প্রধান শ্রীমৎ প্রজ্ঞালংকার মহাস্থবির। বেইন ঘরের চরকা-চরকী উদ্ধোধন করবেন রাজ মাতা আরতি রায় ও চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়।

শুক্রবার রাজ বন বিহার মাঠে প্রধান ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও সমবেত ধর্ম প্রাণ নর-নারীদের উদ্দেশ্য ধর্ম দেশনা প্রদান করবেন বৌদ্ধ ধর্মীয় শীর্ষ গুরুরা। এ ধর্মীয় সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীরবাহাদুর উশৈসিং এমপিসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

এদিকে,এ ধর্মীয় অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে রাঙামাটি শহর দৃশ্যত এখন উৎসবের নগরীতে পরিণত হয়েছে। রাঙামাটি শহরে ইতোমধ্যে তিন পার্বত্য জেলার বিভিন্ন দুর্গম এলাকা থেকে ধর্মপ্রাণ লোকজন সমাগম হতে শুরু করেছেন। অনুষ্ঠানকে ঘিরে রাজ বন বিহারের পাশে হস্তশিল্প, বস্ত্র, ধর্মীয় সিডি ক্যাসেড, বইপত্রসহ নানা পন্যর মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া বিনোদনের জন্য নাগরদোলাসহ নানান খেলাধুলার আয়োজন করা হয়েছে।

উলে¬খ্য, প্রায় আড়াই হাজার বছর আগে ভগবান গৌতম বুদ্ধের জীবব্দশায় মহাপূর্নবতী বিশাখা কর্তৃক প্রবর্তিত ২৪ ঘন্টার মধ্যে সূতা কাটা শুরু করে কাপড় বয়ন, সেলাই ও রং করাসহ যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের দান করা হয়ে থাকে বলে একে কঠিন চীবর দান হিসেবে অভিহিত করা হয়। এ পদ্ধতিতে দান করলে কায়িক-বাচনিক এবং মানসিক পরিশ্রম অধিকতর ফলদায়ক হয় বলে বৌদ্ধ শাস্ত্রে উলে¬খ রয়েছে।

তাই প্রবর্তিত ঐতিহাসিক নিয়ম অনুসারে মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যে আদিবাসী নারীরা চরকায় জুমে উৎপাদিত তূলা থেকে সূতা বের করে বেইনের (কোমড় তাঁত) মাধ্যমে সেই সূতা দিয়ে কাপড় বুনন, রং ও সেলাই করে চীবর(রং বস্ত্র) তৈরীর পর আনুষ্ঠানিকভাবে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের উদ্দেশ্য দান করে থাকেন। ১৯৭৭ সাল থেকে রাঙামাটির রাজ বন বিহারে এ অনুষ্ঠান আনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly