নানিয়ারচরে দুর্বত্তদের গুলিতে শান্তি কুমার চাকমা নামের সাবেক ইউপি মেম্বার নিহত

স্টাফ রিপোর্টার,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Rangamatiরাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের রামহরি পাড়ায় দুর্বৃত্তরা শান্তি কুমার চাকমা(৬২) নামের ইউপির এক সাবেক মেম্বারকে গুলি করে হত্যা করেছে। শনিবার গভীর রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে।

এদিকে এ ঘটনায় জনসংহতি সমিতির পক্ষ থেকে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ) কে দায়ী করেছে। তবে ইউপিডিএফ এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে।

স্থানীয়রা জানায়, রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলার ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের রামহরি পাড়ার বাসা থেকে শনিবার রাত ১১টার দিকে একদল দুর্বৃত্ত ঘিলাছড়ি ইউপির প্রাক্তন মেম্বার শান্তি কুমার চাকমা(৬২) বাসায় যায়। এসময় দুর্বৃত্তরা শান্তি কুমার চাকমাকে কথা আসে বলে বাইরে ডেকে নিয়ে যায়। পরে বাসা থেকে কিছু দূরে নিয়ে গিয়ে শান্তি কুমারকে দুর্বৃত্তরা গুলি করে মৃত্যুর নিশ্চিত হয়ে রাস্তায় লাশ ফেলে রেখে যায়। খবর পেয়ে তার আত্বীয়-স্বজন ও স্থানীয় লোকজন রাস্তা থেকে শান্তি কুমার চাকমার লাশ উদ্ধার করে। পুলিশ খবর পেয়ে রোববার সকালে ঘটনাস্থলে লাশ উদ্ধার করতে গেলেও লাশের দেখা পায়নি। তবে ওই সময় স্থানীয় লোকজন তাড়াহড়ো করে লাশ দাহ করার দৃশ্য দেখতে পেয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় স্থাণীয়রা ভয়ে কেউই মুখতে সাহস পাচ্ছেন না। বর্তমানে এলাকায় চাপা আতংক বিরাজ করছে। এ ব্যপারে থানায় কোন মামলা দায়ের হয়নি।

এদিকে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সহ তথ্য ও প্রচার বিভাগের সম্পাদক সজীব চাকমা নিহত শান্তি কুমার চাকমা জনসংহতি সমিতির সমর্থক উল্লেখ করে তিনি এ ঘটনার জন্য প্রতিপক্ষ ইউপিডিএফকে দায়ী করেছেন। তিনি আরও জানান, গত ২৭ আগস্ট ইউপিডিএফের সদস্যরা একই এলাকার বিকাশ কারবারী(৪৫) নামের একজনকে অপহরন করেছে। তবে তার হদিশ এখনো মিলেনি।

তবে ইউপিডিএফের সমর্থিত পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের জেলা শাখার সভাপতি বাবলু চাকমা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করে জানান, জনসংহতি সমিতির সদস্যরা এর আগেও রামহরি পাড়ায় গিয়ে লোকজনকে গুলি করে হত্যা করেছে। এখন জনসংহতি সমিতি ফায়দা লোটার জন্য নিজেরাই এ ঘটনা ঘটিয়ে অপরকে দোষারুপ করছে। তাই অভিযোগটি সত্য না। এ ঘটনায় ইউপিডিএফ কোনভাবেই জড়িত নয়।

ঘিলাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান অমর জীবন চাকমা ৭নং ওয়ার্ড মেম্বার লতিফ চাকমার বরাত দিয়ে জানান, শনিবার গভীর রাতে কে বা কারা শান্তি কুমার চাকমাকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে গুলি করে লাশ রাস্তায় ফেলে রেখে গেছে।

নানিয়ারচর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মোঃ আব্দুল আউয়াল জানান, খবর পেয়ে পুলিশ রোববার সকালে লাশ উদ্ধার করতে যায়। তবে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগে স্থানীয়রা নিহতের লাশ দাহ করেছে। তিনি আরও জানান, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে পুলিশকে জানিয়েছে এ হত্যাকান্ডের ব্যাপারে কারোর বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ বা মামলা দায়ের করবে না।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly