রাঙামাটিতে শনিবার থেকে তিন দিনের জনসংহতি সমিতির দশম জাতীয় সম্মেলন শুরু

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Picture1

সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির দশম জাতীয় সম্মেলন শুক্রবার থেকে তিন দিন ব্যাপী শুরু হচ্ছে।

তিন দিন ব্যাপী সন্মেলনে গত ২৯ নভেম্বর সন্তু লারমা ঢাকায় এক সংবাদ সন্মেলনের মাধ্যমে ৩০ এপ্রিল মধ্যে পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নে দৃশ্যমান অগ্রগ্রতি না হলে জনসংহতি সমিতি সরকারের  বিরুদ্ধে ১মে থেকে অসহযোগ আন্দোলনের হুমকি দিয়েছিলেন। এ তিন দিনের সন্মেলনে অসহযোগ আন্দোলনের প্রস্তুতি ও সংগঠনের নতুন কমিটি নির্বাচিত করাসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনায় গুরুত্ব পাবে বলে ধারনা করা হচেছ।

 বৃহস্পতিবার জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক মঙ্গল কুমার চাকমার স্বাক্ষরিত এক প্রেস বার্তায় বলা হয়েছে, রাঙামাটি সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউটে প্রাঙ্গণে শুক্রবার সকাল ১০টায় সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান ও  পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা(সন্তু লারমা)। উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সদস্য মাধবী লতা চাকমা। অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রামের বিশিষ্ট নাগরিকরা বক্তব্য প্রদান করবেন। সম্মেলনে জনসংহতি সম্মেলনে রাঙামাটি,বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি জেলা থেকে সংগঠনের নেতাকর্মীরা ছাড়াও সহযোগী সংগঠন পার্বত্য চট্টগ্রাম যুব সমিতি, পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতি, পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের প্রতিনিধিরা পর্যবেক্ষক হিসেবে যোগদান করার কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য,পার্বত্য চট্টগ্রামের দীর্ঘ  দুই যুগেরও বেশী সময় ধরে চলা সশস্ত্র সংঘাত অবসানের লক্ষ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির প্রধান সন্তু লারমার নেতৃত্বে ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর তৎকালীন আওয়ামীলীগ সরকার ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি সই হয়। চুক্তি শর্ত মোতাবেক ৯৮সালের ১০ফের্রুয়ারী থেকে ২৯ মার্চ পর্ষন্ত জনসংহতি সমিতির প্রায় দুই হাজার সদস্য(তৎকালীন সামরিক শাখার শান্তি বাহিনী) মোট চার দফায় অস্ত্র জমাদানের মধ্য দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসেন।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly