রাঙামাটিতে লংগদুর পাকুয়াখালী ট্রেজেডী দিবস পালিত

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

রাঙামাটিতে লংগদু পাকুয়াখালী  ট্রেজেডির ১৮তম বার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

পার্বত্য যুব ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহজাহানের পাঠানো এক প্রেস বার্তায় বলা হয়, পার্বত্য যুব ফ্রন্টের উদ্যোগে লংগদু পাকুয়াখালী  ট্রেজেডির ১৮তম বার্ষিকী উপলক্ষে শহরের বনরুপাস্থ সংগঠনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন যুব ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি নুরুল্লাহ সবুজ। প্রধান আলোচক ছিলেন রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ব্যাবিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজ সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম মুন্না, যুব ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা কাজী মোঃ জালোয়া, আব্দুল্রা আল মামুন। বক্তব্য দেন যুব ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ জাহান, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু হেনা মোস্তফা,  মাসুদ পারভেজ, সোলাইমান, জেলা সভাপতি- আব্দুর রাজ্জাক মিলনসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা সভায় বক্তরা বলেন, সরকার পার্বত্য চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের একদশমাংশ পার্বত্য এলাকাকে একটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। যার ফলাফল পার্বত্যবাসী নির্যাতন ও হত্যা, চাঁদাবাজির মধ্যে দিয়ে চলতে হচ্ছে। সরকারকে অবশ্যই এর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ  নিতে হবে। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচী দিয়ে অধিকার আদায় করে নেয়া হবে। বক্তরারা পাকুয়াখালীর ঘটনার দোষীদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরনের জন্য বিবৃতিতে দাবি জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালের ৯ সেপ্টেম্বর রাঙামাটির লংগদু ও বাঘাইছড়ি উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় পাকুয়াখালীতে ৩৫ জন কাঠুরিয়াকে হত্যা করে সশস্ত্র সদস্যরা। এ ঘটনায় বাঙালীরা তৎকালীন শান্তির বাহিনীর সদসদের দায়ী করেন।  তবে ওই সময় শান্তিবাহিনীর পক্ষ থেকে এ ঘটনায় কোন দায়দায়িত্ব স্বীকার করেননি। উদ্ধারকৃত লাশ পাকুয়াখালীতে গণ কবর দেয়া হয়।

হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly