রাঙামাটি,খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান পার্বত্য জেলা পষিদ(সংশোধন) বিল ২০১৪ এ রাষ্ট্রপতির সম্মতি জ্ঞাপণ

ষ্টাফ রিপোর্টার,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

khdcbuilding

মহামান্য রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ দশম জাতীয় সংসদের চতুর্থ অধিবেশে জাতীয় সংসদে গৃহীত রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পষিদ(সংশোধন) বিল-২০১৪, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ(সংশোধন) বিল ২০১৪ ও খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ(সংশোধন) বিল-২০১৪-সহ ৫টি বিলে বৃহস্পতিবার সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন। অন্য ২টি বিল হল উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা বিল-২০১৪, বাংলাদেশ হোটেল ও রেস্তোরা বিল-২০১৪।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রসঙ্গতঃ উল্লেখ্য, আর্ন্তবর্তীকালীন তিনটি পার্বত্য জেলা পরিষদ বিল সংশোধনের লক্ষে গত ১ জুলাই জাতীয় সংসদে উত্থাপন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। সর্বশেষ গেল রোববার ১জন চেয়ারম্যান ও ১৪ জন সদস্য করে আর্ন্তবর্তীকালীন পরিষদ গঠনে বিধান রেখে তিনটি বিল সংশোধিত আকারে জাতীয় সংসদে পাস হয়।

রাঙামাটি আর্ন্তবতীকালীন পার্বত্য জেলা পষিদ(সংশোধন) বিল ২০১৪, -এ পাহাড়ী থেকে ১ জন চেয়ারম্যান, চাকমা ৩জন, ত্রিপুরা ১জন, খেয়াং ও লুসাই থেকে ১জন, তংচংগ্যা ১জন, ত্রিপুরা ১জন, বাঙালী সম্প্রদায় থেকে ৩ জন এবং পাহাড়ী ও বাঙালী থেকে মনোননীত নারী সদস্য ১ জন করে অর্ন্তভূক্ত রাখার প্রস্তাব করা হয়।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ(সংশোধন) বিল-২০১৪-এ পাহাড়ী থেকে ১ জন চেয়ারম্যান, চাকমা,মারমা ও ত্রিপুরা থেকে ৩জন করে, বাঙালী সম্প্রদায় থেকে ৩ জন এবং পাহাড়ী ও বাঙালী থেকে মনোননীত নারী সদস্য ১ জন করে প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

বান্দরবান আর্ন্তবতীকালীন পার্বত্য জেলা পরিষদ(সংশোধন) বিল ২০১৪-এ পাহাড়ী থেকে ১ জন চেয়ারম্যান, মারমা ৩জন, তংচংগ্যা ও চাকমা থেকে ১জন, ম্রো ১জন, ত্রিপুরা ১জন, চাক, খেয়াং ও খুমী থেকে ১জন, বম, লুসাই ও পাংখোয়া থেকে ১জন, বাঙালী সম্প্রদায় থেকে ৩ জন এবং পাহাড়ী ও বাঙালী থেকে মনোননীত নারী সদস্য ১ জন করে অর্ন্তভূক্ত রাখার প্রস্তাব করা হয়

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly