রাঙামাটির মোনঘরে বার্ষিক সাধারন সভা অনুষ্ঠিত: ৪০ বছর পূর্তিতে ব্যাপক প্রস্তুতি

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

hill-1

পার্বত্য চট্টগ্রামের অন্যতম বিদ্যাপীঠ মোনঘর শিশু সদনের বার্ষিক সাধারন সভা শুক্রবার রাঙামাটিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এদিকে মোনঘরের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আগামী ১৬-১৭ জানুযারী দুদিন ব্যাপী জাকজমক অনুষ্ঠানের জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে।

মোনঘর শিশু সদন সন্মেলন কক্ষে আয়োজিত বার্ষিক সাধারন সভার সভাপতিত্ব করেন পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুকুমার দেওয়ান। এতে উপস্থিত ছিলেন পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি শ্রীমৎ শ্রদ্ধালংকার মহাথের, পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি আরতি চাকমা, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক বুদ্ধদত্ত ভিক্ষু,সোনাধন চাকমা, কোষাধ্যক্ষ সমর বিজয় চাকমা,কালোবরণ চাকমা, ঝুমা দেওয়ান, সিনরা চাকমা, নির্বাহী পরিচালক আশোক কুমার চাকমা,অ্যাডভোকেট উষাময় খীসা, এ্যাডভোকেট চঞ্চু চাকমা,রেবতি রঞ্জন প্রমূখ।

সভায় বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন মোনঘর পরিচালনা কমিটির সাধারন সম্পাদক কীর্তিনিশান চাকমা। তিনি মোনঘরের বিগত বছরের কার্যক্রমের প্রতিবেদন, আর্থিক প্রতিবেদন, অডিট রিপোর্ট এবং আগামী অর্থ বছরের বাজেট উপাস্থপন ও অনুমোদনসহ প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। এছাড়া তিনি মোনঘরের ২০১৫ সালের অর্থ বছরের জন্য ৩কোটি ৯০ লাখ টাকার সম্ভাব্য বাজেট পেশ করেন।

বার্ষিক প্রতিবেদনে বলা হয়, ছাত্র-ছাত্রীদের আবাসন সমস্যা নিরসন ও ক্লাশ রুমে শিক্ষা উপযুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করতে অবকাঠামোগতকে বরাবরই অগ্রাধিকার দেয়া হয়ে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় ফ্রান্সের নাগরিক ম্যারি ক্লউদের দেয়া ৫লাখ ৯০ হাজার দিয়ে বিশাখা ভবনের দ্বিতল ভবনের উপর তলাটি সম্প্রসারন করা হয়। ইউএসএ ডগলাস এ ক্যাম্পবেল ফাউন্ডেশনের সভাপতি মুজিন সুনিমের আর্থিক সহায়তায় কেন্দ্রীয় ডাইনিং হলটি সংস্কার করা হয়। এছাড়া মোনঘর শিশু সদন ও মোনঘর প্রি-ক্যাডেট স্কুলের টয়লেট নির্মাণ ও সংস্কার করা হয়। ২ লাখ ৮৮ হাজার টাকার ব্যয়ে মোনঘরের প্রাক্তন পরিচালক ও সাহিত্যক প্রয়াত সুহদ চাকমার স্মৃতি স্মরণে সুহৃদ ভবন নিমার্ণ করা হয়। এতে উদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সচিব ও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা ও প্রয়াত সুহৃদ চাকমার সহধর্মীনি অর্চনা তালুকদার যৌথভাবে গত ২১ নভেম্বর উদ্বোধন করেছেন। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সহায়তায় মোনঘর আবাসিক বিদ্যালয়ের জন্য ১৫ লাখ টাকার ব্যয়ে চারতলা বিশিষ্ট একােেডমিক ভবন নির্মাণ প্রকল্পের ইতোমধ্যে ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা।

বার্ষিক প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, মোনঘর আবাসিক বিদ্যালয়ে বর্তমানে ১৩শ ৩৬ জন ছাত্র-ছাত্রী পড়ালেখা করছে। এর মধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রামের তিন জেলা থেকে ১০ সম্প্রদায়ের ৮শ ১০জন ছাত্র-ছাত্রী আবাসিক হিসেবে পড়ালেখা করছে। ফলাফলের দিক দিয়ে গত এসএসসি পরীক্ষায় ১৪৯ জনের মধ্যে ১১৩ জন পাস করেছে। যা বিগত বছরের তুলনায় বেশী পাস করেছে। গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের সহায়তার ক্ষেত্রে স্পনসরশিপ প্রোগ্রামের ২৭১ শিক্ষার্থীদেরকে দেশের বাইরে থেকে ৮টি সংস্থা পড়ালেখার জন্য আর্থিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। মোনঘর ও দি মোনঘরীয়ান্স-এর যৌথ উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, প্রৌকশল বিদ্যালয় ও পলিটেনিক্যাল ইনস্টিটিউটে অধ্যয়নরত ৩৫ জন শিক্ষার্থীকে উচ্চ শিক্ষার ঋন দেয়া হয়েছে। মোনঘরের সংস্কৃতি চর্চা বিভাগ থেকে এ বছর বিজু উপলক্ষে রনজিত দেওয়ানের একক সংগীত ও বম ও ম্রো লোকগীতির উপর অ্যালবাম প্রকাশ করা হয়েছে। গেংগুলি গানের অ্যালবামের বের করার জন্য প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া মোনঘরের পরিচালনায় স্বাস্থ্য সেবা ও মোবাইল ক্লিনিকের মাধ্যমে মোনঘরের ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাস্থ্য সেবার পাশাপাশি রাঙ্গাপানি ও ভেদভেদি গ্রামের লোকজনদের মাঝে স্বাস্থ্য সেবা দেয়া হচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মোনঘরের আর্থিক সক্ষমতা ও আত্ননির্ভশীলতা অর্জনের লক্ষে আয় বর্ধন কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে বেকারী, স্টেশনারী দোকান, গার্মেন্টস ও টেনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার, সবজি চাষ ও বনায়ন, মোনঘর প্রকাশনা। প্রতিবেদনে বলা হয় মোনঘরের বর্তমানে মোট ৮০ দশমিক ২৩ একর জায়গা রয়েছে।

অপরদিকে, ১৯৭৪ সালে প্রতিষ্ঠিত মোন ঘর শিশুসদনটি এ বছর ৪০ বছরের পদার্পনে করবে। আগামী জানুয়ারী ১৬ ও ১৭ জানুয়ারী দুদিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানের আয়োজনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে অনুষ্ঠানকে সফল করতে যাবতীয় প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ৪০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মোনঘর প্রতিষ্ঠাতা সদস্যগণ, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিসহ মোনঘরের প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে যারা অবদান রেখেছেন তাদের আমন্ত্রণ ও সন্মাননা প্রদান করা হবে।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly