বৃহস্পতিবার থেকে রাঙামাটিতে তিন দিনের পার্বত্য চট্টগ্রাম আদিবাসী সংস্কৃতি শুরু হচ্ছে

 স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

lophillbd24.com

বৃহস্পতিবার থেকে রাঙামাটিতে তিন দিন ব্যাপী ১৩তম পার্বত্য চট্টগ্রাম আদিবাসী সংস্কৃতি মেলা শুরু হচ্ছে।

জুম ঈসথেটিকস কাউন্সিল (জাক) এর উদ্যোগে রাঙামাটি সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গনে বৃহস্পতিবার মঙ্গল প্রদীপ জ্বালিয়ে ১৩তম মেলার উদ্ধোধন করবেন বিশিষ্ট আদিবাসী লেখক চিত্রমোহন চাকমা। অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টর দেবাশীষ রায়, একেখান ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন খান, বরণ্যে নাট্যজন মামুনুর রশিদ, বিশিষ্ট সংস্কৃতি কর্মী শিশির চাকমা। সভায় সভাপতিত্ব করবেন জাক-এর সভাপতি এ্যাডভোকেট মিহির বরণ চাকমা।

এছাড়া অনুষ্ঠানে সাহিত্য ও সংস্কৃতিতে অবদানের জন্য সংস্কৃতিতে সুরেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এবং সাহিত্য কবি সুহৃদ চাকমাকে মরণোত্তর  ও সাহিত্য বীর কুমার তংচংগ্যাকে জাক সন্মানা প্রদান করা হবে। সন্ধ্যায় আদিবাসী ম্রো, ত্রিপুরা, খুমি ও খিয়াং সম্প্রদায়ের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হবে।

৪ এপ্রিল অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে আদিবাসী কবিতা পাঠের আসর, আদিবাসী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশণ করবেন তংচংগ্যা,পাংখোয়া,চাক ও মোনঘর সাংস্কৃতিক দল। সন্ধ্যা ৭টায় শুভাশিস সিনহার সম্পাদদনা ও নির্দেশনায় মনিপুরি নাটক কহে বীরাঙ্গনা নাটক মঞ্চস্থ হবে।  এছাড়া একই দিন সকালে রাঙামাটি সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বিশ্বব্যাপী আদিবাসীদের সার্বিক অবস্থা, সাংস্কৃতিক অধিকার ও চর্চা বিষয়ে গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এতে তিন পার্বত্য জেলায় বিশিষ্ট আদিবাসী নেতৃবৃন্দ অংশ গ্রহনের কথা রয়েছে।

৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় আদিবাসী কবিতা পাঠের আসর, চাকমা,বম, ত্রিপুরা ও মনিপুরী সম্প্রদায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবেন। সন্ধ্যা ৭টায় শান্তিময় চাকমার রচনায় ও সুখময় চাকমার নির্দেশনায় দুলো পেদার দোলি নাজানা চাকমা নাটক মঞ্চস্থ হবে। এছাড়া একই দিনে সকালের দিকে বাংলাদেশের আদিবাসীদের সার্বিক অবস্থা ও সাংস্কৃতিক বিষয়ে গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

অপরদিকে প্রতিদিন মেলা চলাকালে আদিবাসীদের তৈরী কাপড়-চোপড়,হস্তশিল্প ও আদিবাসী খাদ্য স্টল প্রদর্শিত হবে।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly