বান্দরবানে আওয়ামীলীগ প্রার্থী বীর বাহাদুর জয়ী

বান্দরবান প্রতিনিধি, হলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

AL-Bir Bahadurhillbd24.com

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বান্দরবান ৩০০নং আসনের আওয়ামীলীগ প্রার্থী বীর বাহার(নৌকা) ৫৯ হাজার ৪৫৭ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী প্রসন্ন কান্তি তংচংগ্যা (দেয়াল ঘড়ি) মোট ৩০ হাজার ৫১০ ভোট পেয়েছেন।

এদিকে জেলার তিন উপজেলার ২৫টি কেন্দ্রের পোলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ এনে নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখান করেছেন  প্রসন্ন কান্তি তংচংগ্যা।

পার্বত্য সংদীয় আসনের সাতটি উপজেলা ও ৩১টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এবার দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মোট ভোটারের সংখ্যা হচ্ছে ২ লাখ ১৬ হাজার ৭৯০ জন। এর মধ্যে মহিলা ভোটার ১লাখ দুই হাজার ৫৪৩ আর পুরুষ ভোটার ১লাখ ১৪ হাজার ২৫৭ জন। এ আসনে মোট ১৬৩টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। ১৩টি কেন্দ্র দুর্গম হওয়াতে সেসব কেন্দ্রে নির্বাচনী দিনে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হয়েছে। এবার এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন চার জন প্রার্থী।

জানা গেছে, সকালের দিকে ঠান্ডা আর কুয়াশার কারণে ভোটারদের উপস্থিতি কম ছিল। বেলা বাড়তেই কেন্দ্র গুলোতে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। কোথাও কোনো ধরণের অপ্রীতিকর ও বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আ’লীগের মনোনীত প্রার্থী বীর বাহাদুর নৌকা প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৫৯ হাজার ৪৫৭। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী প্রসন্ন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা দেয়াল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩০ হাজার ৫১০ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী মো: কামরুজ্জামান টিয়া পাখি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৯৯৫, ছোটন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা হাতি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৫১৮ ভোট।

জেলার ১৬৩টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ১৫০টি কেন্দ্রের ফলাফল রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক কেএম তারিকুল ইসলাম প্রকাশ করেছেন। বাকী ১৩টি কেন্দ্রের ফলাফল এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এখনো প্রকাশ করা হয়নি। অপ্রকাশিত কেন্দ্রে মোট ভোটার রয়েছে প্রায় সাড়ে ১১ হাজার। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রসন্ন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার পক্ষে অপ্রকাশিত কেন্দ্রের মোট ভোট যোগ করা হলেও তিনি জয়লাভ করতে পারবেন না। বিজয়ী প্রার্থীর সঙ্গে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বির ভোটের ব্যবধান প্রায় ২৯ হাজার। এই কারণে অপ্রকাশিত কেন্দ্রের ফলাফল প্রকাশের আগেই বেসরকারিভাবে আ’লীগ প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষনা করা হয়েছে।

এদিকে আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী প্রসন্ন কান্তি তংচংগ্যা নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে রোববার রাতে জেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।  অভিযোগে বলা হয়েছে লামা, আলীকদম ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ২৫টি কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসারের সম্মুখে তাঁর পোলিং এজেন্টদের ভয়ভীতি দেখিয়ে বের করে দেওয়া হয়েছে।

জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক কেএম তারিকুল ইসলাম জানান, সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সর্বত্বক সহযোগীতার কারণে কোথাও কোনো ধরণের ঘটনার সৃষ্টি হয়নি।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

 

Print Friendly