বাঘাইছড়িতে বন্দুক যুদ্ধে নিহত ১ঃ আহত ৩

বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি, হিলবিডিটোয়েন্টিাফোর ডটকম

Baghaichari picরাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার জীবতলী এলাকায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি( সন্তু লারমা) ও এমএন লারমাা গ্রুপের জনসংহতি সমিতির মধ্যে মঙ্গলবার বন্দুকযুদ্ধে ১ জন নিহত ও অপর ৩জন আহত হয়েছে।

অপরদিকে মারিশ্যা জোনের বিজিবির সদস্যরা ঘটনাস্থলে গেলে বিজিবির উপর গুলিবর্ষন করে সন্ত্রাীরা। এতে বিজিবিও পাল্টাগুলি করলে সন্ত্রাসীরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে এসএমসির ১টি ম্যাগজিনসহ ৬০ রাউন্ড তাজাগুলি ও ১টি মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়েছে।

স্থাণীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার দুপরের ৩টার দিকে বাঘাইড়ি উপজেলার সদর থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দুরত্বে অবস্থিত জীবতলীয় এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি( সন্তু লারমা) ও এমএন লারমাা গ্রুপের জনসংহতি সমিতির প্রায় দুঘন্টাব্যাপী বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে থেমে থেমে প্রায় কয়েকশ রাউন্ড গুলিবিনিময় হয়। এতে প্রতিপক্ষের গুলিতে জেএসএস সন্তু লারমা গ্রুপের শ্যামল চাকমা নামের একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান। এ সময় এমএন লারমা গ্রুপের ৩ জন আহত হয়। তবে আহতদের নাম নাম জানা যায়নি।

এদিকে সন্ধ্যায় বিজিবির মারিশ্যা জোনে প্রেস ব্রিফিং করা হয়। প্রেস ব্রিফিং-এ বিজিবির মারিশ্যা জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল রবিউল ইসলাম জানান, বন্দুক যুদ্ধের ঘটনার খবর পেয়ে বিজিবির একটি একটি টহল দল ঘটনাস্থলে গেলে বিজিবি’কে লক্ষ্য করে সন্ত্রাসীরা গুলি চালায়। বিজিবিও পাণ্টা গুলি চালায়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে এসএমজির একটি ম্যাগজিন, ৬০ রাউন্ড তাজা গুলি, ৮২টি এস এমজির গুলির খোসা ও ১টি মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার করে। তবে ঘটনাস্থলটি দুর্গম  ও অন্ধকারের কারণে লাশ উদ্ধার করে নিযে আসা সম্ভব হয়নি।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly