বরকলে ৬ বসত বাড়ি ও ২দোকান ঘরে নগদ টাকা সহ স্বর্ণালংকার চুরি   

পুলিন চাকমা/ইতিময় চাকমা,বরকল, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

vbরাঙামাটির বরকল উপজেলা সদর সহ আশে পাশের কয়েকটি গ্রামে সম্প্রতি চুরির ঘটনা বেড়েই চলছে। চোরদের সংঘবদ্ধ একটি দল গত মাসে ৬টি বসত বাড়ি ও ২টি দোকান ঘরে ঢুকে নগদ টাকা স্বর্ণালংকার,মোবাইল,মেমোরী কার্ডসহ পুরানো দিনের রুপার মুদ্রা চুরি করে। স্থানীয় প্রশাসন ও এলাকার লোকজন এখনো চোরদের আটক কিংবা চিহ্নিত করতে পারেনি বলে ভূক্তভোগীদের অভিযোগ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়-গত মাসে লতিবাশঁ ছড়া গ্রামের সমর কান্ত চাকমা ও তার স্ত্রী সহ জমিতে কাজ করতে গেলে দিনে দুপুরে ঘরের তালা ভেঁেঙ্গ চোরেরা নগদ ২২হাজার ৫০০ টাকা আর ব্রীটিশ আমলের রুপার মুদ্রা ৪০টি স্বর্ণের আংটি এক জোড়া চুরি করে নিয়ে যায়। বাঘছড়ি গ্রামের বিরো রাজ চাকমার নগদ ১৬হাজার টাকা সহ তার স্ত্রীর স্বর্ণের কানের দুল এ জোড়া, মরা উজ্জ্যাংছড়ি গ্রামের অমর চান চাকমার নগদ ৯০০ টাকা ও এক বস্তা চাউল, সদর এলাকার বাবু পাড়া গ্রামের সরকারী চাকুরীজীবি জীবক চাকমার নগদ ১৩হাজার ৬০০ টাকা ও স্বর্নের কানের দুল এক জোড়া,কলেজ পাড়ার বাসিন্দা অনিল কুমার চাকমার ৫০০ টাকা চুরি হয়। এ ছাড়াও বরকল বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ ওয়াসিম এর দোকান থেকে নগদ ৩হাজার ১শ ৩২ টাকা,দামী মোবাইল সেট ৪টি,মেমোরী কার্ড সীম কার্ড,হাবিব মেম্বারের দোকান থেকে বোটলজাত ১০লিটার তেল সহ অন্যান্য মালামাল চুরি হয়।

এসব চুরির ব্যাপারে সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড মেম্বার হাবিবুর রহমান বলেন- চোরদের আপাতত সময়ে আটক করতে না পারলেও ধারনা করা হচ্ছে কিছু উচ্ছৃঃখল যুবক নেশা গ্রস্থ হয়ে নেশার টাকা যোগাড়ের জন্য বাড়ি ঘরে ঢুকে চুরি করছে। তবে চোরদের এ সুযোগ বেশী দিন দেয়া যাবেনা। যতই শীঘ্রই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে বলে মেম্বার অভিমত ব্যক্ত করেন।

বরকল থানার ওসি আবদুল করিম জানান, লোকমুখে চুরির ঘটনা শুনলেও থানায় এসে কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পাওয়া গেলে তিনি অবশ্যই পদক্ষেপ নেবেন বলে জানান।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly