বগাছড়িতে সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল ড্রেস ও শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছে পিসিপি

ডেস্ক রিপোর্ট,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Picture3

রাঙামাটির নানিয়ারচরে উপজেলার বগাছড়িতে সহিংসা ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে  স্কুল ড্রেস, বই-খাতাসহ শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি)।

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদখাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমার স্বাক্ষরিত একপ্রেস বার্তায় বলা হয়, স্কুল ড্রেস ও শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ উপলক্ষে মঙ্গলবার পিসিপি খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি জেলা শাখার যৌথ উদ্যোগে বগাছড়ি করুনা বন বিহার মাঠে এক ছাত্র সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এতে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি বাবলু চাকমা। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অনিল চাকমার সঞ্চালনায় অন্যান্যর মদ্যে বক্তব্য রাখেন পিসিপি কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক রিটন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক সর্বানন্দ চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রিনা চাকমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা, পিসিপি চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সভাপতি বিপুল চাকমা, পিসিপি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি অংকন চাকমা এবং ক্ষতিগ্রস্ত ছাত্র-ছাত্রীর পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি সরকারী কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র রিকন চাকমা। সমাবেশ শেষে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের সহযোগীতার লক্ষ্যে স্কুল ড্রেস, বই-খাতা সহ বিভিন্ন শিক্ষাসামগ্রী উপকরণ বিতরণ করা হয়।

সমাবেশে বক্তরা অভিযোগ করে বলেন, বাংলাদেশের নিপীড়িত জনগণ ৪৪ বছর আগে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর নিপীড়ন-নির্যাতনের হাত থেকে দেশ ও জাতিকে রক্ষা করতে মুক্তিযুদ্ধে জীবন দিয়েছিল। কিন্তু সেই রাষ্ট্র ও তার বাহিনী পাহাড়ি জাতিসত্তার অস্তিত্ব ধ্বংস করতে সমতল থেকে নিয়ে আসা সেটলার বাঙালিদের মদদ দিয়ে পাহাড়িদেরকে নিজ ভূমি থেকে উচ্ছেদ করার জন্য প্রতিনিয়ত ভূমি বেদখলের ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে গত বছর ১৬ ডিসেম্বর বগাছড়িতে তিনটি পাহাড়ি গ্রামে হামলা, বাড়িঘর-দোকানপাটে অগ্নিসংযোগ করে ধ্বংসস্তুপে পরিণত করা হয়েছে। বক্তারা রাষ্ট্রীয় নিপীড়ন ও জাতি ধ্বংসের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য ছাত্র সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly