ফেসবুকে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ঘটনায় কাপ্তাইয়ে এক যুবক আটক

কাপ্তাই প্রতিনিধি,হিলবিডিটোয়ন্টিফোর ডটকম Kaptai Pic

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি পোস্ট করাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার কাপ্তাই উপজেলায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে  প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের দ্রুত  হস্তক্ষেপের কারণে উত্তেজনা নিরসনে সক্ষম হয়েছে।  এ ঘটনায় জড়িতের অভিযোগে পুলিশ অংসিংমং মারমা নামের এক যুবকে আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সকালের দিকে অংসিংমং মারমার তার নিজস্ব ফেসবুক একাউন্ট থেকে কুরআন শরীফ ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে ছবিসহ আপত্তিকর বক্তব্য দেয়। এর পর দ্রুত বিষয়টি কাপ্তাই উপজেলায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকার ধর্মপ্রাণ লোকজন বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেন। এক পর্যায়ে বিক্ষুদ্ধ লোকজন ফেস বুকে আপত্তিকরকারী পোষ্ট দেয়া অংসিংমং মারমাতে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ-মিছিল এবং কাপ্তাই-চট্টগ্রাম সড়ক অবরোধ করেন। এতে তৎক্ষনিকভাবে জেলা প্রশাসন ও আইন-শৃংখলা বাহিনীর তড়িৎ ঘটিতে হস্তক্ষেপের কারনে কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ছড়াতে পারেনি।

বিকেলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে এক জরুরী বৈঠক ডাকা হয়। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিরা বৈঠক শেষে উপজেলা চত্তরে স্থানীয় জনগণের উদ্দেশ্যে উত্তেজনা না ছড়ানোর জন্য বক্তব্য তুলে ধরেন। তারা বলেন, যেই দোষী হোক তাকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দেওয়া হবে। তবে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কেউ যাতে ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করতে না পারে সেদিকে সবাইকে সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান তারা।

এছাড়া ওই দিন সন্ধ্যার দিকে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মো: মোস্তাফা কামাল পাশার সভাপতিত্বে উপজেলা নির্বাহী কার্যালয়ে পুনঃরায় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বৈঠকে পুলিশ সুপার আমেনা বেগম, ওয়াগ্গা বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্নেল সাব্বির সারার সাফাত, জেলা এডিসি রেভিনিউ তানভির আহমেদ সিদ্দিকি, জেলা প্রথম শ্রেণির ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দিলদার হোসেন, রাঙামাটি সদর উপজেলা ইউএনও ও কাপ্তাইয়ের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা রহমান শম্পা, এএসপি (কাপ্তাই সার্কেল) সাফিউল, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি অংসুইছাইন চৌধুরী, কাপ্তাই থানার ওসি হারুন অর রশীদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সৃষ্ট ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে মঙ্গলবার একটি মামলা দয়ের করে। যার মামলা নং-০২। মামলার পর রাতেই পুলিশ অংসিংমং মারমাকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। আটক অংসিমং মারমার পিতার নাম সুইহ্লাপ্রু মারমা। তার বাড়ী কাপ্তাইয়ের বড়ইছড়িপাড়া। এলাকায় যে কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ ও বিজিবি টহল অব্যাহত রয়েছে।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly