রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সংবর্ধনা সভায় প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি


পার্বত্যাঞ্চলে গুটি কয়েক মানুষ সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজী, অপহরণ, হত্যা ও গুমের সাথে জড়িত

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Pic-10-05-14-3

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেছেন পার্বত্যাঞ্চলে গুটি কয়েক মানুষ সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজী, অপহরণ, হত্যা ও গুমের সাথে জড়িত। তাদের নিমুল করতে সরকার অঙ্গীকারাবদ্ধ। এসব সন্ত্রাসীদের নির্মুল করতে যারা এ এলাকায় শান্তি চান, সম্প্রীতি চান, ছেলে-মেয়েদের শিতি করতে চান তারা আমাদের পাশে থাকবেন বলেন তিনি আশা প্রকাশ করেন।

তিনি আরও বলেন, যারা অস্ত্রের ভাষায় কথা বলে, সন্ত্রাসী কার্যক্রম করে তাদের শিকড়সহ কিভাবে উপড়ে ফেলতে হয় তা আওয়ামীলীগের জানা আছে বলে হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

শনিবার রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপিকে দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সংরতি মহিলা সাংস সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, আওয়ামীলীগ সিনিয়র সহ-সভাপতি ও আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য মাহাবুবু রহমান, আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম, কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ আখতার, মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদিক জেবুন্নেছা রহিম, স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক স্মৃতি বিকাশ ত্রিপুরা, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নুর মোহাম্মদ কাজল, ছাত্রলীগ সভাপতি শাহ এমরান রোকন সহ আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা বক্তব্য রাখেন। পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপিকে জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে পৌছঁলে নেতৃবৃন্দ ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

বীর বাহাদুর এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের জন্য অঙ্গীকার করেছেন তার এক চুলও এদিক-ওদিক হবে না। ভালো কাজের বিরোধীরা সব সময় বিরোধীতা করতে থাকবে। আমরা আমাদের ভালো কাজ গুলো করে যাবো।

তিনি বলেন, আমি মনে করি কোন সাংসদের কোন সন্ত্রাসী দল থাকতে পারে না। রাঙামাটি থেকে নির্বাচিত সাংসদও চান না এখানে সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজী হোক। সন্ত্রাস নির্মুলে আমার সেই ভাই অবশ্যই আমাদেরকে সহযোগিতা করবেন এটা আমাদের বিশ্বাস। সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজীদের কোন দল নেই। আমরা অস্ত্রধারীদের বিশ্বাস করি না, সন্ত্রাসীকে বিশ্বাস করি না, তাদেরকে আশ্রয় ও প্রশ্রয়ও দিই না। যারা অস্ত্রবাজী করে, চাঁদাবাজী করে সন্ত্রাসী করে তারা শুধু আমাদের নয় দেশ ও জনগনের শত্র“। সকল রাজনৈতিক দল, সকল সম্প্রদায় মিলে আমরা পার্বত্য অঞ্চল থেকে সন্ত্রাস দমন করবো। সন্ত্রাসীদের শেখর পার্বত্য অঞ্চল থেকে উপড়ে ফেলে হবে।

তিনি আমাদের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে কোন বিভেদ নেই। সকলেই আমরা মিলে মিশে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলবো। পার্বত্য অঞ্চলের জনগনের শান্তি জন্য, তাদের জান মাল রা করার জন্য এ অঞ্চলের সম্প্রীতি রার জন্য যা করা দরকার তা আমরা করতে প্রস্তুত রয়েছি।

রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি দীপংকর তালুকদার বলেন, পাহাড়ের যারা অস্ত্রবাজী, চাঁদাবাজী করে তাদের বিরুদ্ধে পার্বত্য অঞ্চলের মানুষ ধীরে ধীরে ঐক্য বদ্ধ হচ্ছে। আর বেশীদিন সময় নেই যারা এসব অপকর্মের সাথে জড়িত রয়েছে তাদেরকে নির্মুল করে দিতে। তিনি বলেন, এই এলাকার জনগনই তাদের নির্মুল করে দেবে।

তিনি বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের উন্নয়নের আওয়ামীলীগ সরকার সব সময় বদ্ধ পরিকর। আওয়ামীলীগ থেকে বিজয় ছিনিয়ে নিয়ে গেলেও আওয়ামীলীগ রাঙ্গামাটি জেলার উন্নয়নে এতোটুকু কারপণ্য করবে না। তিনি বলেন, পাহাড়ের আওয়ামীলীগ যে উন্নয়ন করেছে অতীতের কোন সরকার তা করতে পারেনি। কিন্তু আমাদের আঞ্চলিক দল গুলো সেসব উন্নয়ন কাজে সব সময় বাধা দিয়ে আসছিলো। আমরা তাও উন্নয়ন কাজে পিছপা হয়নি।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly