নানিয়ারচরে বাঙালীদের আনারস বাগানের চারা ও সেগুন গাছের চারা বিনষ্টকারীদের গ্রেফতারের ৪৮ ঘন্টার অাল্টিমেটাম পার্বত্য নাগরিক পরিষদের

স্টাফ রিপোর্টার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলাধীন বগাছড়ি ১৪ মাইল এলাকায় বাঙ্গালীদের ৫লাখ আনারস চারা ও ২৫ হাজার সেগুন গাছের চারা বিনষ্টকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে রোববার রাঙামাটিতে সংবাদ সন্মেলন করেছে পার্বত্য নাগরিক পরিষদ ও পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদ।

সংবাদ সন্মেলনে নেতৃবৃন্দ দোষীদের গ্রেফতার করে শাস্তির জন্য ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম বেধে দেন। অন্যথায় হরতালসহ কঠোর কর্মসূচির হুমকি দিয়েছেন।

শহরের কাঠালতলীস্থ আইডিই ভবনে আয়োজিত সংবাদ সন্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পাঠক করেন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক নূর জাহান বেগম। এসময় উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি সাব্বির আহমেদ ও পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের জেলা শাখার সহ-সভাপতি মোঃ তুহিন।

সংবাদ সন্মেলনে বলা হয়, গত ১৫ ডিসেম্বর দিবাগত রাত্রে কতিপয় পাহাড়ী নানিয়ারচর উপজেলাধীন বগাছড়িতে বাঙালী কৃষকদের ৫লাখ ফলন্ত আনারসের চারা ও ২৫ হাজার সেগুন গাছের চারা কেটে ফেলে। এতে কৃষকদের প্রায় এক কোটি টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সংবাদ সন্মেলনে আরও বলা হয়, পার্বত্যাঞ্চলে মূল সমস্যা ভূমির সমস্যা। চুক্তির আলোকে ভূমি কমিশন আইন ও ভুমি কমিশন গঠন হওয়ার পরও সন্ত্রাসীরা ভুমি বিরোধ নিস্পত্তির না হওয়ার লক্ষে ভুমি কমিশনকে ভুমি জরীপ কার্যক্রমে বাঁধা দিয়ে আসছে বলে ভুমি জটিলতা নিরসন হচ্ছে না। পার্বত্যাঞ্চলে বিরাজমান অশান্ত পরিবেশের জন্য একমাত্র দায়ী সশস্ত্র সন্ত্রাসীর কর্মকান্ডে, চাঁদাবাজী, গুম ও হত্যা। পার্বত্য অঞ্চলে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের মাধ্যমে সশস্ত্র সংগ্রামের অবসান করতে হবে।

সংবাদ সন্মেলনে অভিযোগ করা হয়, উক্ত ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য বিদেশীসংস্থার সহযোগীতায় ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট পাহাড়ীরা তাদের অপকর্ম ঢাকতে নিজেদের বসতবাড়ি ও দোকানে সাজানো আগুন লাগিয়ে বাঙ্গালীদের উপর দোষ চাপানোর পায়তারা করছে এবং ফলাও করে তাদের পোড়া বাড়িঘরের ও দোকানের ছবি তুলে বিভ্রান্তিমূলক প্রচারানা চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া গত কিছুদিন আগে আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান সন্তু লারমা যে আল্টিমেটাম দিয়েছেন তার সাথে এ ঘটনাটি জড়িত।

সংবাদ সন্মেলনে আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে এই ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিয়ে বাঙালী কৃষকদের সকল ক্ষতিপূরণসহ পুনর্বাসিত করা। অন্যথায় হরতালসহ কঠিন কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবে। এছাড়া আগামী ২৪ডিসেম্বর বাগান কর্তনকারী দোষীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে রাঙামাটি শহরে বিক্ষোভ-মিছিলের ঘোষনা দেয়া হয় সংবাদ সন্মেলনে।
হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly