নানিয়ারচরে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের গাড়িতে হামলা:ভাইস-চেয়ারম্যান আহত

স্টাফ রিপোর্টার,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

1
রাঙামাটির নানিয়ারচরে বগাছড়ির রাস্তা মাথা এলাকায় সোমবার বিকালে নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের গাড়ীতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলায় উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান ও উপজেলা সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি রণবিকাশ চাকমা গুরুত্বর আহত হন। তাকে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার মাথা ও হাতে জখম হয়।

জানা গেছে, বগাছড়িতে সহিংস ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে সোমবার বিকালে রণবিকাশ চাকমাসহ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) মোঃ নূরুজ্জামান, থানার ভারপ্রাপ্ত(ওসি) আব্দুর রশিদ নানিয়ারচর সদর থেকে ১৪ মাইল এলাকায় যাচ্ছিলেন। এ সময় রাস্তা মাথায় নামক এলাকায় পৌঁছলে একদল পুর্নবাসিত বাঙালী গাড়ী গতিরোধ করে অতর্কিতে প্রথমে রণ বিকাশকে বল্লম দিয়ে আঘাত করলে তার ডান হাত জখম হয় এবং পরে গাড়ী থেকে তাকে নামিয়ে লাঠি দিয়ে আঘাত করলে তার মাথা ফেটে গিয়ে গুরুত্বর আহত হন। পরে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান,ইউএনও ও ওসি তাকে হামলাকারীদের হাত থেকে উদ্ধার করে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে পাঠান। এসময় হামলাকারীরা উপজেলা চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমাকেও গাড়ি থেকে নামিয়ে লাঞ্ছিত এবং বিভিন্ন হুমকি দেয় বলে অভিযোগ করেছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জানিয়েছেন।

3

উল্লেখ্য, ১৬ ডিসেম্বর বগাছড়িতে আনারস চারা ও সেগুন গাছের চারা কেটে দেয়ার জের ধরে সুরিদাশ পাড়াসহ তিনটি পাহাড়ী গ্রামের দোকান ও বসতবাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। এতে ৬১টি দোকান ও বসতবাড়ি পুড়ে যায়। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন থেকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফ উদ্দীন আহম্মদকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি সরকারী তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। এছাড়া নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে প্রধান করে ১২ সদস্য সদস্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এদিকে, আহত সেচ্ছাসেবক দলে উপজেলা শাখার সভাপতি রণবিকাশ চাকমাকে হাসপাতালে দেখতে যান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফ উদ্দীন আহম্মদ। এছাড়া তাকে হাসপাতালে দেখতে যান জেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাড দীপেন দেওয়ান। এসময় সেচ্ছাসেবক দলের জেলা শাখার সভাপতি দেবজ্যোতি চাকমাসহ বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় দীপেন দেওয়ান ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে জড়িতদের গ্রেফতার দাবি এবং উদ্ধুদ্ধ পরিস্থিতি অতিদ্রুত সমাধানের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

অপরদিকে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচারর সম্পাদক সজীব চাকমা এক বিবৃতিতে, উপজেলা উর্দ্ধতন প্রশাসন, সেনা বাহিনী ও পুলিশের উপস্থিতিতে এ ধরনের হামলার ঘটনা অত্যন্ত দু:খজনক। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের আজকের(সোমবার) মধ্যে গ্রেফতারের জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবি জানান।

2

রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা.অনন্ন্যা চাকমা জানিয়েছেন, ভাইস চেয়ারম্যানের মাথায় ও হাতে জখম হয়েছে। মেডিকেল টেস্ট না করা পর্ষন্ত তিনি আশাংকামুক্ত কিনা বলা যাচ্ছে না। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

নানিয়ারচর থানার ওসি রশীদ সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাস্থলে হামলাকারীর সংখ্যা বেশী হওয়ায় তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি। এই ঘটনায় মামলা হবে। দোষীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly