দীঘিনালায় বিএনপি-আওয়ামী লীগের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ  

দীঘিনালা প্রতিনিধি, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Khag map

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় একটি হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিএনপি-আওয়ামীলীগ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে। সোমবার সকাল সাড়ে ৯ টায় উপজেলার লারমা স্কোয়ার সংলগ্ন কলেজ মোড়ে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

বিএনপি’র পক্ষ থেকে অভিযোগ করে জানানো হয়, জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত জনসভায় যাওয়ার পথে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা কলেজ মোড়ে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। হামলায় তাদের বেশক’জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলেও জানানো হয়।

এদিকে  বিএনপি’র এ অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা অভিযোগ করে  আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বিএনপি’র সন্ত্রাসীরা সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর একের পর এক হামলার ঘটনা ঘটিয়ে দীঘিনালায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করার চেষ্টা করছে। গতকালও তারা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করার জন্য কলেজ মোড়ে জড়ো হয়েছিল। এ সময় পুলিশী উপস্থিতি টের পেয়ে বিএনপি সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায় বলে দাবী করে আওয়ামী লীগ।

এ বিষয়ে উপজেলা বিএনপি’র (অদুদ পক্ষ) সহ-সভাপতি মাসুদ রানা জানান, সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের অনুমতি নিয়েই জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনের কর্মসূচী ঘোষনা করা হয়েছিল। তারপরও সরকার দলীয় নেতাকর্মীরা বিনা উস্কানীতে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছে। পুলিশ আমাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। তাই আগামীতে পুলিশ কিংবা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই উপজেলা বিএনপি সরকার বিরোধী আন্দোলন কর্মসূচী পালন করা হবে বলে জানান তিনি। অপরদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন জানান, বিএনপি’র (অদুদ পন্থী) নেতাকর্মীরা সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর একের পর এক হামলার ঘটনা ঘটিয়ে অধিপত্য বিস্তারের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

সম্প্রতি বিএপির সন্ত্রাসীদের হামলায় উপজেলার কবাখালীতে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের ১৭ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে দাবী করে তিনি জানান, গতকাল (সোমবার) সকাল সাড়ে ৯ টায় তারা একই কায়দায় সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করার জন্য কলেজ মোড়ে জড়ো হয়েছিল। সময় মতো পুলিশ না এলে কলেজ মোড়ে বড় ধরনের অঘটন ঘটাতো বলে দাবী করেন তিনি। এবিষয়ে দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ সাহাদাত হোসেন টিটো জানান, বিএনপি-আওয়ামী লীগ কলেজ মোড়ে মুখোমুখি অবস্থান নেয়ার সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছার পর উভয় পক্ষ তাদের স্ব-স্ব অবস্থানে চলে যায়।

পুলিশ উপস্থিত হওয়ার আগে হামলা কিংবা পাল্টা হামরার ঘটনা ঘটেছে কি-না তা আমার জানা নেই। তবে পুলিশী উপস্থিতির পর কোনো ধরনের অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটেনি বলে জানান তিনি। এদিকে নানা প্রতিবন্ধকতার মাঝেও জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা যুবদলের সভাপতি মোমিনুল ইসলাম।

—হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

 

 

 

Print Friendly