দীঘিনালায় গণঅনশন কর্মসূচিতে বাধাদানের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ভূমি রক্ষা কমিটি

ডেস্ক রিপোর্ট,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় উপজেলায় বুধবার গণকর্মসূচি কর্মসূচি পালনে বাধাদানে তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে দীঘিনালা ভুমি রক্ষা কমিটি।

বুধবার দীঘিনালা ভূমি রক্ষা কমিটির সদস্য প্রজ্ঞান জ্যোতি চাকমার স্বাক্ষরিত এক প্রেস বার্তায় বলা হয়, ১৪ জুন দীঘিনালা মৌজার যত্নকুমার কার্বারী পাড়া ও শশী মোহন কার্বারী পাড়া থেকে ২১ পরিবার পাহাড়ি উচ্ছেদের শিকার হয়েছিলেন তাদের ন্যায়সঙ্গত দাবীর সমর্থনে ভূমি রক্ষা কমিটি ও দীঘিনালার সুশীল সমাজের পক্ষ থেকে বুধবার দীঘিনালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে শান্তিপূর্ণভাবে এক প্রতীকি গণঅনশন কর্মসূচির আহ্বান করেছিল। কিন্তু উপজেলা প্রশাসন ও আইন-শৃংখলা বাহিনীর পক্ষ থেকে বুধবার ভোর ৫টা থেকে সকল প্রকার যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে তল্লাসী চৌকি বসিয়ে বিভিন্ন স্থানে তল্লাসী চালানো হয়। এতে জনগণ গণঅনশন কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করতে না পারায় পূর্ব নির্ধারিত গণঅনশন কর্মসূচি ভন্ডুল হয়ে যায়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ১৪৪ ধারা জারি না করা সত্ত্বেও যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা ও গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে তল্লাসী চৌকি বসিয়ে তল্লাসী চালানো শুধু বেআইনী নয়, এটা জনগণের শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিকভাবে মত প্রকাশের স্বাধীনতা হরণ এবং সংবিধানের মৌলিক অধিকারেরও পরিপন্থি। এটা সরকারের ফ্যাসিস্ট মানসিকতারই বহিঃপ্রকাশ বলে বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়।

বিবৃতিতে অবিলম্বে বিজিবি’র ৫১ ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তর স্থাপন কার্যক্রম বাতিল করে বিজিবি সদস্যদের প্রত্যাহার, শশী মোহন কার্বারী পাড়া ও যত্নকুমার কার্বারী পাড়ায় জেলা প্রশাসনের অবৈধ জমি অধিগ্রহণ বাতিল করে উচ্ছেদকৃত ২১ পাহাড়ি পরিবারকে স্বস্ব জমি ও বসতভিটা ফিরিয়ে দেয়া এবং দায়ের করা মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়েছে।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly