দীঘিনালায় উৎসব মুখর পরিবেশে তিন দিনব্যাপী বৌদ্ধ মেলা শুরু

দীঘিনালা প্রতিনিধি, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

dighinala(khagrachari)-pic13-02-2014hillbd24.com

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় উৎসব মুখর পরিবেশে তিন দিন ব্যাপী বৌদ্ধ মেলা শুরু হয়েছে। বুধবার ভোর ৬ টায় জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে তিন দিনব্যাপী এই মেলার উদ্বোধন করা হয়। এরপর সকাল ৮ টায় বের করা হয় বর্ণাঢ্য মোটর শোভাযাত্রা। দীঘিনালা-বাবুছড়া সড়কে প্রদর্শিত মোটর শোভা যাত্রায় বৌদ্ধ ধর্মালম্বী নারী পুরুষ শিশু কিশোরসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষ এতে অংশ নেন।

পার্বত্য ভিক্ষু সংঘের কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক, রাজ গুরু অগ্রবংশ বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও দীঘিনালা দশবল রাজবিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ প্রজ্ঞাজ্যোতি থেরোকে মহাথেরো হিসেবে বরন উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী এই বৌদ্ধ মেলার আয়োজন করা হয়।

 

দীর্ঘ ১৬ বছর পর দীঘিনালা দশবল রাজবিহার প্রাঙ্গনে আয়োজিত এই বৌদ্ধ মেলাকে ঘিরে বইছে উৎসব মুখর পরিবেশ। দীঘিনালা দশবল রাজবিহার প্রাঙ্গনে সর্বশেষ বৌদ্ধ মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছিল ১৯৯৮ সালে। বুধবার সন্ধ্যায় মেলা প্রাঙ্গন ঘুরে দেখা যায় উপচেপড়া মানুষের ভীড়। জাতি ভেদাভেদ নির্বিশেষে এ অঞ্চলের সকল সম্প্রদায়ের মানুষ মেলায় অংশ নিয়েছে। মেলা প্রাঙ্গনে হরেক প্রকার রকমারির পণ্যর দোকান সাজিয়ে বসেছে অসংখ্য বিক্রেতা।

মেলা প্রাঙ্গনে জুফা’র সাধারন সম্পাদক নয়ন চাকমা জানান, অনেক জ্ঞানী ও গুনের মানুষ শ্রীমৎ প্রজ্ঞাজ্যোতি থেরো। দীর্ঘ ২০ বছর ধরে থেরো হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর শ্রীমৎ প্রজ্ঞাজ্যোতিকে এই অঞ্চলের মানুষ আজ উৎসব মুখর পরিবেশে ধর্মীয় নিয়মানুসারে মহাথেরো হিসেবে বর্ণাঢ্য ধর্মীয় আয়োজনের মাধ্যমে বরন করে নিয়েছেন। এ উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী বৌদ্ধমেলার পাশাপাশি বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান করা হবে।

মেলা উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক লোচন দেওয়ান জানান, এই অঞ্চলের বৌদ্ধ ধর্মালম্বী সম্প্রদায়ের পরম শ্রদ্ধেয় প্রান পুরুষ শ্রীমৎ প্রজ্ঞাজ্যোতি থেরোকে মহাথেরো হিসেবে বরন করে নিতে তিন দিনব্যাপী বৌদ্ধমেলাসহ বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নিয়েছি। সকল সম্প্রদায়ের হাজার হাজার মানুষের যোগদানের মধ্য দিয়ে আমরা এই ধর্মীয় কর্মসূচী পালন করছি। এটি এ অঞ্চলের মানুষের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত বলেও তিনি মনে করেন।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly