খাগড়াছড়ি’র দীঘিনালায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে ইউপিডিএফের ১ কর্মী নিহতঃ আহত ১

দীঘিনালা প্রতিনিধি, হিলবিডিটোয়েনিটফোর ডটকম 

dighinala (khagrachari) picture, 09-03-2014hillbd24.com

খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার বাবুছড়ায় রোববার সকালে দুর্বৃত্তদের গুলীতে ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) ১ কর্মী নিহত ও অপর ১ জন গুলি বিদ্ধ  হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নাম সুদৃষ্টি চাকমা (৩০)।

এদিকে ইউপিডিএফের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে ঘটনায় প্রতিপক্ষ সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতিকে দায়ী করেছে। তবে জনসংহতি সমিতি তা অস্বীকার করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রোববার সকালের দিকে উপজেলার বাবুছড়া ইউনিয়নের বাবুছড়া বাজারের রাস্তা মাথায় একটি চায়ের দোকানে বসে সুদৃষ্টি চাকমা(৩০)ও হৃদ্ধি চাকমা দু’জন চা খাচ্ছিলেন। এসময় আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা এক দল অস্ত্রধারী তাদের ল্য করে গুলি করে। এতে ঘটনাস্থলে সুদৃষ্টি চাকমা নিহত হন এবং হৃদ্ধি চাকমা আহত হন। ঘটনার পর এলাকাবাসী হৃদি চাকমাকে উদ্ধার করে দীঘিনালা হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পুলিশ ও সেনাবাহিনী ঘটনাস্থল থেকে নিহত সুদৃষ্টি চাকমার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর মর্গে পাঠিয়েছে।নিহত সুদৃষ্টি চাকমা বাবুছড়া ইউনিয়নের মইগ্যা কারবারী পাড়ার মৃত নিতাই চাকমার ছেলে এবং আহত হৃদ্ধি চাকমা বাঘাইছড়ি উপজেলার মডেল টাউন গ্রামের শরত কুমার চাকমার ছেলে বলে জানা যায়।

নিহতের ছোট বোন দিপালী চাকমা (২৭) জানান, আমার ভাই সকালে নাস্তা করার জন্য বাড়ির পাশের দোকানে যায়। সেখানে সন্তু লারমার সন্ত্রাসীরা আমার ভাইকে গুলি করে হত্যা করেছে। আমি আমার ভাইয়ের খুনিদের বিচার চাই।

এদিকে,ইউপিডিএফের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগের প্রধান নিরন চাকমার স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ ঘটনায় সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতিকে দায়ী করে বলা হয়েছে , রোববার সকালে সুদৃষ্টি চাকমা ও হৃদ্ধি চাকমা সাংগঠনিক কাজে বাবুছড়ার রাস্তামাথায় বের হন। তারা একটি দোকানে বসে লোকজনের সাথে কথাবার্তা বলছিলেন। এ সময় হঠাৎ করে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা দোকানে ঢুকে খুব কাছ থেকে তাদেরকে লক্ষ্য করে প্রকাশ্যে ব্রাশ ফায়ার করে। এতে ঘটনাস্থলেই সুদৃষ্টি চাকমা নিহত হন এবং হৃদ্ধি চাকমা দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ হন।

dighinala(khagrachari)-pic-09-03-2014 copyhillbd24.com

বিবৃতিতে এ ঘটনাকে ন্যাক্কারজনক ও কাপুরুষোচিত উল্লেখ করে অভিযোগ করা হয়, পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণের ঐক্য আকাক্সক্ষার প্রতি সম্মান দেখিয়ে অচিরেই এ ধরনের ঘৃণ্য খুন-খারাবির রাজনীতি বন্ধ করুন, নইলে জনগণ এর উপযুক্ত জবাব দেবে। বিবৃতিতে সুদৃষ্টি চাকমার হত্যাকারী দের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার দাবি জানান।

অপরদিকে ইউপিডিএফের এই অভিযোগ অস্বীকার করে সন্তু লারমা সমর্থিত পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সহ-তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা জানান, এই ঘটনার সাথে আমাদের সংগঠনের কোনো নেতাকর্মী জড়ির নয়। ইউপিডিএফ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ করে আমাদের সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার ষড়যন্ত্র করছে। তাদের আভ্যন্তরীন কোন্দলের কারনেই এই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবী করেন তিনি।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ সাহাদাত হোসেন টিটো জানান, আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চলমান সংঘাতের অংশ হিসাবেই এই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। তবে এবিষয়ে এখনো থানায় কোনো মামলা দায়ের করা হয়নি বলে জানান তিনি।

dighinala (khagrachari) picture, -b-09-03-2014hillbd24.com

এদিকে এই ঘটনার প্রতিবাদে এবং খুনিদের গ্রেফতারের দাবীতে দুপুরে উপজেলা সদরে বিক্ষোভ-মিছিল ও সমাবেশ করে ইউপিডিএফ। উপজেলা সদরের বিভিন্ন সড়কে বিক্ষোভ প্রদর্শন শেষে লারমা স্কোয়ারে সমাবেশ করা হয়।

ইউপিডিএফের উপজেলা সংগঠক কিশোর চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে গনতান্ত্রিক যুব ফোরামের সদস্য জীবন চাকমা, দীঘিনালা ডিগ্রি কলেজ শাখা পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের সভাপতি রুপেশ চাকমা ও চট্টগ্রাম বন্দর শাখা ইউপিডিএফের সংগঠক বকুল চাকমা বক্তব্য রাখেন। বক্তাগন এই সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা ও হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবী জানান।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly