খাগড়াছড়িতে কবরস্থান বেদখল করে সড়ক উন্নয়ন প্ল্যান্ট নির্মাণের প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

খাগড়াছড়ি প্রতিবেদক, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

Khagrachari Humanchain picture 7.11.2014
খাগড়াছড়ি জেলাশহরের অদূরে গঞ্জপাড়া এলাকায় ধনাঢ্য এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে কবরস্থানের জায়গা বেদখল করে ‘সড়ক উন্নয়ন প্ল্যান্ট’ নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয়, সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে বুলডোজার দিয়ে কবর উপড়ে ফেলার প্রমাণও পাওয়া গেছে। তবে অভিযুক্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ‘সেলিম এন্ড ব্রাদার্স’-র স্বত্তাধিকারী মোঃ সেলিম দাবী করেছেন, তিনি জায়গাটি চাইন্দাউ মারমা প্রকাশ থৈ চেয়ারম্যান নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে ভাড়া নিয়েছেন।

এদিকে কবরস্থান বেদখল করে সড়ক উন্নয়ন প্ল্যান্ট নির্মাণের প্রতিবাদে এলাকাবাসী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। কবরস্থান দখল করে পাথর প্ল্যান্ট নির্মাণকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় বাসিন্দা ছৈয়দ আলী জানান, ১৯৮৭ সালে স্থানীয় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান চাইন্দাউ মারমা প্রকাশ থৈ চেয়ারম্যান এর দান করা বিশ শতক জায়গার উপর গড়ে উঠে এ কবরস্থানটি। এরিমধ্যে জায়গাটি কবরস্থানের নামে রেজিষ্ট্রেশনের চুড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। দীর্ঘ ২৭ বছর যাবৎ কবরস্থানটি গঞ্জপাড়াবাসী ব্যবহার করে আসছে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, সম্প্রতি সময়ে ‘সেলিম এন্ড ব্রাদাসর্’ নামের স্থানীয় একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কবরস্থান এর জায়গা দখল করে পাথর প্ল্যান্ট সম্প্রসারণ করে। বর্তমানে ওই স্থানে সেলিম এন্ড ব্রাদার্স নামে সাইনবোর্ড টাঙ্গিয়ে পাথর ভাঙ্গার একাধিক মেশিন ও ভাঙ্গনকৃত পাথরের স্তুপ রাখা হয়েছে। দেয়া হয়েছে নতুন তাঁরকাটার বেঁড়া।
স্থানীয়রা জানান, ঠিকাদার সেলিম প্রভাবশালী হওয়ায় বাঁধা প্রদান করেও কবরস্থানটি জবর দখলের হাত থেকে রক্ষা করা সম্ভব হয়নি।

গঞ্জপাড়া কবরস্থান পরিচালনা কমিটির সভাপতি রইছ আলী অভিযোগ করে বলেন, কিছুদিন আগে ঠিকাদার সেলিম তার পাথর প্ল্যান্ট বাস্তবায়নের জন্য ৩০-৪০জন শ্রমিক এনে বুলডোজার দিয়ে ২০-৩০টি কবর উপড়ে দেয়। এসময় বাঁধা প্রদান করলেও বাহুবলে তিনি কবরস্থানের জায়গা দখল করে নেন।

স্থানীয় বাসিন্দা আলম রাজা বলেন, এই কবরস্থানে আমার ছেলের কবর ছিল, উপড়ে ফেলায় সেই কবরের চিহ্নও এখন নেই। অপর বাসিন্দা মো. আইনুল হক জানান, তার পিতার কবরও উপড়ে ফেলা হয়েছে।

গঞ্জপাড়া এলাকার বাসিন্দা আইনুল হক মিস্ত্রী বলেন, শুধু কবরস্থান নয় সরকারি ভাবে নির্মিত চলাচলের রাস্তাটিও ঠিকাদার সেলিম ক্ষমতার অপব্যহার করে জবরদখল করে পাথর প্লান্ট নির্মাণ করতে গিয়ে ২০/৩০টি কবরও উপড়ে ফেলেছে।

জমি দখলের অভিযোগ অস্বীকার করে সেলিম এন্ড ব্রাদার্সের স্বত্বাধিকারী মোঃ সেলিম জানান, আমি জমির মালিক নই, থৈই চেয়ারম্যানের নিকট থেকে পাথর প্ল্যান্টের জন্য জমি লিজ নিয়েছি মাত্র। ওখানে কবরস্থান ছিল কিনা তা জমির মূল মালিক থৈ চেয়ারম্যান ভাল জানেন।

এদিকে কবরস্থান বেদখল করে সড়ক উন্নয়ন প্ল্যান্ট নির্মাণের প্রতিবাদে এলাকাবাসী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। এতে গঞ্জপাড়া এলাকাবাসী অবিলম্বে কবরস্থান দখলমুক্ত ও এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দখলকারী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly