কেপিএমকে আধুনিকায়নের মাধ্যমে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিনত করা হবে– শিল্পমন্ত্রী

নজরুল ইসলাম লাভলু, কাপ্তাই, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

KPM Leader

চন্দ্রঘোনার কর্ণফুলী পেপার মিলকে (কেপিএম) আধুনিকায়নের মাধ্যমে একটি লাভজনক কারখানায় প্রতিষ্ঠিত করা হবে। সম্প্রতি শ্রমিক লীগের আওতাভুক্ত নব নির্বাচিত কেপিএম সিবিএ নেতৃবৃন্দ শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, কর্ণফুলী পেপার মিল বাঙ্গালীর স্বাধিকার ও ৬ দফা আন্দোলনের সাথে জড়িত। তাই কেপিএম ও মিলের শ্রমিক কর্মচারীদের স্বার্থে সরকার কাজ করে যাবে।

গত ১৫ অক্টোবর সিবিএ নির্বাচনে কেপিএম এমপ্লয়ীজ ইউনিয়ন সিবিএ নির্বাচিত হয়। সৌজন্য স্বাক্ষাতকালে সিবিএ সভাপতি ও রাঙামাটি জাতীয় শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি তৌহিদ আল মাহবুব চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হাজী আবদুল ওহাব বাবুল, আবদুল মন্নান মুন্না, কাজল বড়ুয়া, রাশেদুল হক সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নেতৃবৃন্দ জানান, ইতোমধ্যে, শিল্প মন্ত্রনালয় ও বিসিআইসির সহযোগিতায় মিল কর্তৃপক্ষ স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী কিছু পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী ওভারহলিং, টারবাইন জেনারেটর, কসটিক ক্লোরিং প্লান্ট, কেমিকেল রিকভারী প্লান্টের গুরুত্বপুর্ণ কাজগুলোর সংষ্কার পরিবর্তন, পরিবর্ধন করা হবে। এ কাজে প্রায় ৫৩ দশমিক ৬৮ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে।

প্রসঙ্গতঃ ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতার সময় কেপিএমকে আধুনিকায়ন করতে ওই সময়ে ৪৬০ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়েছিল। এর জন্য চায়না একটি কোম্পানীকে কার্যাদেশ পর্যন্ত দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ২০০১ সালে জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর আধুনিকায়ন প্রকল্পটি স্থগিত হয়ে যায়। পরবর্তীতে ১/১১ এর তত্বাবধায়ক সরকারের সময় আধুনিকায়নের জন্য ১৮২ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এ অর্থ দিয়ে কেপিএমের আধুনিকায়ন প্রকল্প সম্পুর্ন বাস্তবায়ন করা সম্ভবপর হয়ে উঠেনি।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly