কাপ্তাই হ্রদে বুধবার মধ্য রাত থেকে মাছ শিকারের উপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

 ডেস্ক রিপোর্ট, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

DSC05880

রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে তিন মাস মৎস্য আহরণ, সংরক্ষণ, বাজারজাতকরণ, শুকানো এবং পরিবহনের উপর নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকার পর বুধবার মধ্যরাত(রাত ১২টা) থেকে প্রত্যাহার হচ্ছে।

এদিকে  কাপ্তাই হ্রদ হতে অবৈধভাবে মা ও পোনা মাছ আহরণ ও পাচার কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালত ৫জনকে বিভিন্ন মেয়াদে জেল এবং ১৩ জনকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেছনে।

বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন(বিএফডিসি) রাঙামাটির উপ-ব্যবস্থাপক মোঃ মাসুদুল আলমের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বার্তায় বলা হয়, প্রতি বছর মাছের প্রজনন মৌসূমে তিন থেকে সাড়ে তিন মাস কাপ্তাই হ্রদ থেকে মাছ আহরণ বন্ধ রাখা হয়। গত ৭ মে মধ্যরাত থেকে কাপ্তাই হ্রদ থেকে মৎস্য আহরণ, সংরক্ষণ, বাজারজাতকরণ, শুকানো এবং পরিবহনের উপর জেলা প্রশাসক এক আদেশের মাধ্যমে নিষেধাজ্ঞা আরোপিত রয়েছে। তবে বুধবার মধ্যরাত থেকে উক্ত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে পূনরায় কাপ্তাই হ্রদ হতে মৎস্য আহরণ উন্মুক্ত করার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসক কর্তৃক আদেশ জারী করেছনে। বিএফডিসি, মৎস্য ব্যবসায়ীগণ ও জেলেরা মৎস্য আহরণ শুরু করার লক্ষ্যে পূর্ণ প্রস্তুুতি গ্রহণ করেছে।

প্রেস বার্তায় আরও বলা হয়, তিন মাসের সময়ে সরকার জেলেদের বিকল্প জীবিকা হিসেবে বিশেষ ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে ১৮ হাজার ৯৬০ জন জেলেকে ২০ কেজি খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছে। মাছ আহরণ বন্ধকালীন সময়ে মা ও পোনা মাছ অবৈধভাবে আহরণ ও পাচার রোধ করে কাপ্তাই হ্রদের মাছের সুষ্ঠু প্রজনন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে হ্রদে প্রথম বারের মতো বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড নিয়োগ করা হয়েছে। নিয়োগকৃত কোস্ট গার্ড সদস্যগণ দিবারাত্র হ্রদেই অবস্থান করে বিভিন্ন অভিযান পরিচলনা করেছেন। ফলে অভুতপূর্ব ফলাফল পাওয়া গেছে। অতীতে হ্রদে মাছ আহরণ বন্ধকালীন সময়ে মা ও পোনা মাছ অবৈধভাবে আহরণ ও পাচার প্রবণতা দেখা যেত। কিন্তু এ বছর অবৈধভাবে মাছ আহরণ ও পাচার তেমন দেখা যায়নি।

কাপ্তাই হ্রদ থেকে প্রকৃতই মাছ আহরণ বন্ধ রাখার জন্য জেলা প্রশাসন, জেলা পরিষদ, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, পুলিশ, বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড, বিজিবি, আনসার ব্যাটেলিয়ানসহ আরো অন্যান্য প্রতিষ্ঠান থেকে সক্রিয় সহায়তা পাওয়া গেছে। এছাড়া গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সাংবাদিক ও সাধারণ জনগণ বিভিন্ন তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন। সকল পর্যায়ের সহযোগিতায় অতীতের যে কোন সময়ের তুলনায় এ বছর বিএফডিসি কাপ্তাই হ্রদের মাছ আহরণ বন্ধ কার্যক্রম সফলভাবে সম্পাদনে সক্ষম হয় বলে প্রেস বার্তায় দাবি করা হয়েছে।

প্রেস বার্তায় উল্লেখ করা হয়, বিএফডিসি-জেলা প্রশাসনের সহায়তায় কাপ্তাই হ্রদ থেকে তিন মাস মাছ বন্ধের সময় অবৈধভাবে মা ও পোনা মাছ আহরণ ও পাচার কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালত কর্তৃক ১ জনকে ২ দিন, ১ জনকে ৩ দিন, ১ জনকে ৭ দিন, ১ জনকে ১০ দিন এবং ১ জনকে ২০ দিন জেল দেয়া হয়েছে। এছাড়া ১৩ জনকে ৩০ হাজারটাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।  এছাড়া বিএফডিসি বিভিন্ন অভিযান পরিচলনা করে অবৈধভাবে পাচারকালে কাঁচা মাছ ১৪৭০ কেজি, শুকনা মাছ ১৭৩৬ কেজি, কেচকি জাল ৩০ টি, কারেন্ট জাল ২৫০ কেজি, সুতার জাল ৩শ কেজি, ঠেলাজাল  ১৪ টি, ইঞ্জিনচালিত নৌকা  ৫ টি এবং ইঞ্জিনবিহীন নৌকা  ১১১ টি উদ্ধার করা হয়েছে।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা.সিআর.

Print Friendly