এক নজরে খাগড়াছড়ি আসনের নির্বাচনী ফলাফল

জাহাঙ্গীর আলম রাজু, দীঘিনালা,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

10th MP Electionhillbd24.com

৫ জানুয়ারী দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খাগড়াছড়ির ২৯৮ নং আসনে অবাধ সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে ভোট গ্রহন চলাকালে ৮ উপজেলার কোথাও কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি। আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর কড়া নজরধারীর পাশাপাশি নিরাপত্তার চাদরে ডাকা ছিল আট উপজেলার প্রতিটি ভোট কেন্দ্র। খাগড়াছড়ি আসনে পাহাড়ী বাঙ্গালী মিলে মোট ভোটার ৩ লাখ ৮১ হাজার ৯১৬ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ১ লাখ ৯২ হাজার ২৩০ জন ভোটার। তামধ্যে ৯৯ হাজার ৫৮ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা (নৌকা)। তার নিকটতম প্রতিদ্বদ্বী ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ৬৭ হাজার ৭০০ ভোট।

খাগড়াছড়ির জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মাসুদ করিমের ঘোষিত নির্বাচনী ফলাফলের নিন্মরুপ–

নির্বাচনী এলাকা দীঘিনালা উপজেলাঃ
দীঘিনালা উপজেলায় পাহাড়ী বাঙ্গালী মিলে মোট ভোটার ৬৫ হাজার ৮৭৩ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ৩২ হাজার ৪৬৫ জন। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা (নৌকা) পেয়েছেন ১৩ হাজার ৭৫ ভোট। ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ১৩ হাজার ৮৯২ ভোট। জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী সোলায়মান আলম সেঠ (লাঙ্গল) পেয়েছেন ৮৬৫ ভোট। এমএন লারমা সমর্থিত পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি মনোনীত স্বতন্ত্র প্রার্থী মৃনাল কান্তি ত্রিপুরা (বই) পেয়েছেন ৩ হাজার ৩০৩ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী উজ্জল স্মৃতি চাকমা (টেবিল) পেয়েছেন ৭৫ ভোট। এই উপজেলায় বাতিল ভোট ১ হাজার ২৫৫ টি।

নির্বাচনী এলাকা রামগড় উপজেলাঃ
সীমান্তবর্তী রামগড় উপজেলায় মোট ভোটার ৪৪ হাজার ৬ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ১৯ হাজার ২৫৯ জন। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্র ত্রিপুরা (নৌকা) পেয়েছেন ১২ হাজার ৭৬১ ভোট। ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ৩ হাজার ৮১৯ ভোট। জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী সোলায়মান আলম সেঠ (লাঙ্গল) পেয়েছেন ১ হাজার ১৯৭ ভোট। পিজেএসএস এমএন লারমা সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মৃনাল কান্তি ত্রিপুরা (বই) পেয়েছেন ৩৯৭ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী উজ্জল স্মৃতি চাকমা (টেবিল) পেয়েছেন ৮৫ ভোট।

নির্বাচনী এলাকা মানিকছড়ি উপজেলাঃ
মানিকছড়ি উপজেলায় মোট ভোটার ৩৬ হাজার ৫২৫ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ১৩ হাজার ৯৮৭ জন। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা (নৌকা) পেয়েছেন ১০ হাজার ৪০৮ ভোট। ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ২ হাজার ৮৪ ভোট। জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী সোলায়মান আলস সেঠ (লাঙ্গল) পেয়েছেন ৮৮৯ ভোট। পিজেএসএস এমএন লারমান সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মৃনাল কান্তি ত্রিপুরা (বই) পেয়েছেন ৮৩ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী উজ্জল স্মৃতি চাকমা (টেবিল) পেয়েছেন ৪৯ ভোট।

নির্বাচনী এলাকা মাটিরাঙ্গা উপজেলাঃ
মাটিরাঙ্গা উপজেলায় মোট ভোটার ৭২ হাজার ৯৭০ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ৩৭ হাজার ৫১২ জন। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা (নৌকা) পেয়েছেন ২৮ হাজার ৫৯৫ ভোট। ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ৩ হাজার ৮১৬ ভোট। জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী সোলায়মান আলম সেঠ (লাঙ্গল) পেয়েছেন ২ হাজার ৯৩২ ভোট। পিজেএসএস এমএন লারমা সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মৃনাল কান্তি ত্রিপুরা (বই) পেয়েছেন ৮২২ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী উজ্জল স্মৃতি চাকমা (টেবিল) পেয়েছেন ৯১ ভোট। এই উপজেলা ১ হাজার ২৬৫ টি ভোট বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা।

নির্বাচনী এলাকা লক্ষীছড়ি উপজেলা: 
লক্ষিছড়ি উপজেলায় মোট ভোটার ১৫ হাজার ৯০৫ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ১১ হাজার ৭৫ জন। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা (নৌকা) পেয়েছেন ২ হাজার ৮৪৬ ভোট। ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ৭ হাজার ৬৭২ ভোট। জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী সোলায়মান আলম সেঠ (লাঙ্গল) পেয়েছেন ১৫২ ভোট। পিজেএসএস এমএন লারমা সমর্থিত মৃনাল কান্তি ত্রিপুরা (বই) পেয়েছেন ২৭ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী উজ্জল স্মৃতি চাকমা (টেবিল) পেয়েছেন ৪০ ভোট। এই উপজেলায় ভোট বাতিল হয়েছে ৩৩৮ টি।

নির্বাচনী এলাকা মহালছড়ি উপজেলা: 
মহালছড়ি উপজেলায় মোট ভোটার ৩১ হাজার ৮৫৮ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ১৭ হাজার ৯৫৩ জন। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা (নৌকা) পেয়েছেন ৬ হাজার ৮৪ ভোট। ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ৯ হাজার ১৩৬ ভোট। জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী সোলায়মান আলম সেঠ (লাঙ্গল) পেয়েছেন ১৮৫ ভোট। পিজেএসএস এমএন লারমা সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মৃনাল কান্তি ত্রিপুরা (বই) পেয়েছেন ২ হাজার ৫৪ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী উজ্জল স্মৃতি চাকমা (টেবিল) পেয়েছেন ৬৯ ভোট। এই উপজেলায় ভোট বাতিল হয়েছে ৪২৪ টি।

নির্বাচনী এলাকা পানছড়ি উপজেলা : 
পানছড়ি উপজেলায় মোট ভোটার ৪২ হাজার ৩৭১ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ২৫ হাজার ২৫৮ জন। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা (নৌকা) পেয়েছেন ৮ হাজার ৮২৬ ভোট। ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ১২ হাজার ৩০৮ ভোট। জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী সোলায়মান আলম সেঠ (লাঙ্গল) পেয়েছেন ৭১৬ ভোট। পিজেএসএস এমএন লারমা সমর্থিত স্বতন্ত্র মৃনাল কান্তি ত্রিপুরা (বই) পেয়েছেন ২ হাজার ৯৮ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী উজ্জল স্মৃতি চাকমা (টেবিল) পেয়েছেন ৬৪ ভোট। এই উপজেলায় বাতিল ভোটের সংখ্যা ৭৫১ টি।

নির্বাচনী এলাকা খাগড়াছড়ি সদর উপজেলাঃ
খাগড়াছড়ি সদর উপজেলায় মোট ভোটার ৭১ হাজার ৮১৪ জন। তারমধ্যে ভোটাধীকার প্রয়োগ করেছেন ৩৪ হাজার ১০৪ জন। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা (নৌকা) পেয়েছেন ১৬ হাজার ৪৬২ ভোট। ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসা (হাতি) পেয়েছেন ১৪ হাজার ৪৭৮ ভোট। জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী সোলায়মান আলম সেঠ (লাঙ্গল) পেয়েছেন ১ হাজার ২৪৪ ভোট। পিজেএসএস এমএন লারমা সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মৃনাল কান্তি ত্রিপুরা (বই) পেয়েছেন ১ হাজার ৮৪০ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী উজ্জল স্মৃতি চাকমা (টেবিল) পেয়েছেন ৮০ ভোট।
হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly