ছুটিতে পর্যটকদের বরনে প্রস্তুুত রাঙামাটি পর্যটন

বিশেষ বিপোর্টার,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

12

পর্যটকদের বরণ করতে প্রস্তুত পর্যটন শহর রাঙামাটি। এবার ঈদ ও দূর্গা পূজার দীর্ঘ লম্বা ছূটি থাকলেও শহরের হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউসগুলাতে পর্যটকরা আশানরুপ বুকিং দেয়নি বলে ব্যবসার সাথে সংশ্লিষ্ট জানিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়,পবিত্র ঈদ-উল-আযহা ও শারদীয়া দূর্গা পূজা উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভ্রমন পিপাসু পর্যটকরা ইটপাথুরের শহর ও যান্ত্রিকতার ক্লান্তি দূর করতে প্রতি বছর প্রকৃতির রাণী রাঙামাটির অপরুপ সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে ছুটে আসেন। এ বছর ঈদ ও দূর্গা পূজার দীর্ঘ লম্বা ছুটি হওয়ায় এবং রাজনৈতিক অস্থিরতা না থাকায় এবার পর্যটকদের রাঙামাটি হোটেল-মোটেল ও গেষ্ট হাউসগুলো বুকিং শতভাগ হবে। কিন্তু হোটেল-মোটেলগুলোতে আশানরুপ বুকিং দেয়নি পর্যটকরা। তবে একমাত্র রাঙামাটি সরকারী পর্যটন মোটেলে আগামী ৭ অক্টোবর থেকে এক সপ্তাহ ধরে শত ভাগ বুকড রয়েছে। এছাড়া বেসরকারী হোটেলগুলোতে আগামী ৮ ও ৯ অক্টোবর দুদিনের মাত্র ৫০ শতাংশ বুকড থাকলেও অন্যান্য দিনে তেমন একটা আশানুরুপ বুকিং নেই। বেসকারী হোটেল ব্যবসার সংশ্লিষ্টতদের মতে, রাঙামাটিতে যে পর্যটক বেড়াতে আসে তিনি আর দ্বিতীয়বারের মত রাঙামাটিতে বেড়াতে আসতে চান না। কারণ রাঙামাটি পর্যটনের নতুন কোন পর্যটন স্পট থেকে অবকাঠামো গড়ে উঠেনি এখনো। সে জন্য পর্যটকের সংখ্যা কমে যাচ্ছে।

রাঙামাটি পর্যটনের আকর্যনীয় স্পটের মধ্যে রয়েছে,পর্যটনের ঝুলন্ত সেতু, শুভলং এর মনোমুগ্ধকর ঝর্ণা, রাজ বন বিহার,জেলা প্রশাসনের বাংলো, বীর শ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফের সমাধি সৌধ, বালুখালী কৃষি খামার, টুক টুক ইকোভিলেজ,সাংপাং রেস্টুরেন্ট এবং আদিবাসী শান্ত সবুজ গ্রাম ও তাদের জীবনযাত্রা। এছাড়াও রয়েছে কাপ্তাই উপজেলায় কর্ণফুলী নদীর তীরে গড়ে উঠা আকর্যনীয় পর্যটন স্পট, কাপ্তাই জল বিদ্যূৎ উৎপাদন কেন্দ্র, কর্ণফূলী পেপার মিলস্ ও কাপ্তাই জাতীয় উদ্যোন।

গ্রীন ক্যাসেলের ব্যবস্থাপক গৌতম দাশ জানান, ঈদ কিংবা দূর্গা পূজার ছূটিতে অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর হোটেলের বুকিং আশানুরুপ নয়। শুধুমাত্র ৮ ও ৯ অক্টোবার শতকরা ৫০ শতাংশের অধিক বুকিং থাকলে বাকী দিনগুলোতে বুকিং নেই বললেই চলে। তার মতে, রাঙামাটি পর্যটনে নতুন নতুন স্পট থেকে অবকাঠামো গড়ে না উঠায় পর্যটকরা আগ্রহী হয়ে উঠছেন না।

হোটেল সুপিয়া সিইও সাইফুল ইসলাম(মুন্না) জানান, এবারের ঈদে শতকরা ৫০ ভাগ রুম বকুড হয়েছে। তবে এবারের ঈদ ও দুর্গা পূজা উপলক্ষে লম্বা ছুটি থাকলেও রাঙামাটি পর্যটকদের হোটেলের রুম বুকিং আশানুরুপ না।

রাঙামাটি সরকারী পর্যটন কমপ্লেক্সের ব্যবস্থাপক আলোক বিকাশ চাকমা ঈদ ও দূর্গার লম্বা ছুটিতে পর্যটকদের বরন করতে রাঙামাটি সরকারী পর্যটন মোটেল সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। তার পর্যটন মোটেলে ইতোমধ্যে আগামী ৭ অক্টোবর থেকে সকল রুম আগেভাগে বুকড হয়েছে। এবার লম্বা ছুটিতে রাঙামাটিতে পর্যটকদের ঢল নামবে বলে তিনি আশাবাদী। তিনি আরও জানান, ইতোমধ্যে ৮কোটি ৬০ লক্ষ টাকার ব্যয়ে নির্মিত ও মনোরম পরিবেশে রাঙামাটিতে তিন তারকা মানের আধুনিকমানের নতুন পর্যটন মোটেল ভবন চালু হয়েছে। নতুন এ মোটেলে পর্যটদের যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা দেয়া হচ্ছে।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly