পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন অগ্রগতিসহ সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষনে


ইউরোপীয় ইউনিয়নের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলের রাঙামাটি ও বান্দরবানে সফর

স্টাফ রির্পোটার, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম 

RHDC Picture-09-02-14-02hillbd24.com

সম্পাদিত পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়নের অগ্রগতি ও পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নসহ সার্বিক পরিস্থিতি সরেজমিনে পর্যবেন করতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল রোববার থেকে তিন দিনের রাঙামাটি ও বান্দরবান সফর করছেন। সফরকালে তারা জাতিসংঘের(ইউএনডিপি) অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন প্রকল্পের(সিএইচডিএফ) পরিদর্শন, স্থানীয় জন প্রতিনিধি, উর্দ্ধতন সরকারী কর্মকর্তা ও সামাজিক নেতৃবৃন্দের সাথে সাক্ষাতকালে করেন।

সফরকারী চার সদস্যর ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রতিনিধি দলের মধ্যে রয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হান্না, স্পেনের রাষ্ট্রদূত লুইস তেজেডা স্যায়শন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের উন্নয়ন বিভাগের প্রধান পিলিপস জ্যাকবস ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি ফ্রাব্রিজিও সেনরিসি।

জানা গেছে, সফরের প্রথম দিন রোববার প্রতিনিধি দলটি পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা(সন্তু লারমা), রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল, পাহাড়ী-বাঙালী ও নারী নেতৃবৃন্দের সাথে পৃথক পৃথকভাবে বৈঠক করেছেন। এছাড়া প্রতিনিধি দলটি সোমবার সকালে চাকমা সার্কেল চীফ রাজা দেবাশীষ রায়ের সাথে সাক্ষাত করার কথা রয়েছে।

সাক্ষাতকালে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি দলটি জনপ্রতিনিধি নেতৃবৃন্দের সাথে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ভূমি, উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী এবং নারীদের অংশগ্রহণ, পার্বত্য জেলা পরিষদ নির্বাচন, পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির বাস্তবায়নের অগ্রগতি এবং সার্বিক আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন সম্পর্কে মত বিনিময় করেন। প্রতিনিধি দলটি বিশেষ করে পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে তিন পার্বত্য জেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

এদিকে, রোববার সকালের দিকে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা তার কার্যালয়ে প্রতিনিধি দলের সাথে সাক্ষাতকালে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়নের আগেই যদি ইউরোপীয় ইউনিয়ন পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে তাদের সাহায্য প্রত্যাহার করে নেয় তাহলে এর বিরূপ প্রভাব পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়নের উপর পড়বে। তিনি এ অঞ্চলে ইউরোপীয় ইউনিয়নের উন্নয়ন কার্যক্রম চালিয়ে অনুরোধ করেন।

ঈরিষদ চেয়ারম্যান আরও জানান, পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন একটি চলমান প্রক্রিয়া। ইতোমধ্যে চুক্তির একটি বৃহৎ অংশ বাস্তবায়িত হয়েছে এবং অন্যান্য ধারাগুলোও বাস্তবায়িত হচ্ছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নে অত্যন্ত আন্তরিক। বর্তমান সরকার নির্বাচনী ইশ্তেহারেও পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়নে দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন বলে প্রতিনিধি দলকে জানান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান। তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়ন ক্রমান্বয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে তাদের সাহায্য প্রত্যাহার করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

চেয়ারম্যানের সাথে সাক্ষাতকালে এসময় উপস্থিত ছিলেন পরিষদের সদস্য অংসুই প্রু চৌধুরী, শামীম রশিদ, মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইরফান শরীফ এবং জনসংযোগ কর্মকর্তা অরুনেন্দু ত্রিপুরা, ইউএনডিপি-সিএইচটিডিএফ-এর ডেপুটি ডিরেক্টর প্রসেনজিৎ চাকমা, চীফ ইমপ্লিমেন্টাশন রব স্টোলম্যান এবং ডিস্ট্রিক্ট ম্যানেজার ঔশ্বর্য চাকমা।

অপরদিকে, দুপুরের দিকে ইউরোপীয় প্রতিনিধি দলটি সন্তু লারমার সাথে তার কার্যালয়ে সাাত করেন। এসময় সন্তু লারমা পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নে সরকারের অসদিচ্ছাসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরেন প্রতিনিধি দলের কাছে।

এছাড়া বিকালের রাজবাড়ীর একটি রেষ্টুরেন্টে পাহাড়ী-বাঙালী নেতৃবৃন্দের সাথে পৃথ পৃথকভাবে বৈঠক করেছেন। তাছাড়া প্রতিনিধি দলটি এর আগে নারী নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক করেন।

সূত্র জানায়, প্রতিনিধি দলটি কাল সোমবার রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলায় ইউএনডিপি’র অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন সিএইচডিএফ-এর প্রকল্প পরিদর্শন শেষে পার্বত্য বান্দরবান জেলায় সফরের কথা রয়েছে।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদানা/সিআর.

Print Friendly