আলীকদমে প্রবারণা উৎসবে পূণ্যার্থীদের ঢল

আলীকদম  প্রতিনিধি,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

alikada news, Bandarban pic..

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের তিন দিন ব্যাপি বর্ণিল আয়োজনে ব্যাপক আনন্দ-উচ্ছাসের মধ্যে দিয়ে শুক্রবার প্রবারণা উৎসব সমাপ্ত হয়েছে। প্রতি বছর বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা ধর্মীয় মর্যাদায় এ  প্রবারণা পূর্ণিমা পালন করে থাকেন।

এদিকে প্রবারনা পূর্নিমা উৎসবে উপজেলার মাতামূহুরী নদীতে পঙ্খীরাজ ভাসানো হাজারো দর্শনার্থীর ঢল  নেমেছে।

জানা যায়, আষাঢ়ী পূর্ণিমা থেকে আশ্বিনী পূর্ণিমা পর্যন্ত তিন মাস ব্যাপী বৌদ্ধ ভিক্ষুরা কঠিন সাধনার মধ্যে দিয়ে তিনমাস বর্ষাবাস পালন করে থাকেন।  এর পর প্রাবনরা পূর্ণিমা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ভিক্ষুরা বর্ষাবাস শেষ করে থাকেন। এ প্রবারণা পূর্ণিমাকে মারমা ভাষায় ওয়াগ্যোয়াই পোয়ে বলে থাকেন।  এর পর মাসব্যাপী পালাক্রমে প্রতিটি বৌদ্ধ মন্দিরে চলে বৌদ্ধ সর্ববহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান কঠিন চীবর দানোৎসব। ।

এদিকে, উপজেলায় আলীকদম বৌদ্ধ যুব পরিষদের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য মঙ্গলযাত্রার মধ্যে দিয়ে প্রবারণা উৎসব শুরু হয়। এতে বৌদ্ধভিক্ষু, অষ্টশীলধারী উপাসক-উপাসিকা ও পূণ্যার্থীরা অংশ নেন। এ ছাড়া পূজা-আর্চনা, ভিক্ষুদের পিন্ডদান, পিঠা তৈরি, মোমবাতি প্রজ্জ্বলন, ফানুস উড়ানো, পঙ্খিরাজের রথযাত্রা, আত্মশুদ্ধি, দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় সমবেত প্রার্থনাসহ ধর্মীয় নানা আনুষ্ঠানিকতায় ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় প্রবারণা উৎসব উদ্যাপিত হয়েছে। উপজেলার দুর্গূম পাহাড়ী বৌদ্ধপল্লী ও বৌদ্ধ বিহারগুলোয় পূণ্যার্থীরা আকাশে রঙিন ফানুস উড়ানো হয়।  তিন দিনের সন্ধ্যার আকাশে তারার সাথে মেলবন্ধন করেছে ফানুস। আকাশের তারকাদের সাথে ফানুসের মিলন মেলা পূর্ণিমার চাঁদের আলোকে দিয়েছে বাড়তি মনোমুগ্ধকর দৃশ্য।

অরপদিকে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় বৌদ্ধ বিহার থেকে মাতামূহুরী নদীতে ভাসানো হয় পঙ্খিরাজ। এ সময় মাতামূহুরী নদীর দুই তীরে হাজারো পূণ্যার্থী ও দর্শনার্থীর ঢল নামে। পূণ্যার্থীরা মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করে মঙ্গল কামনা করেন।

উপস্থিত দর্শনার্থীরা জানান, প্রবারণা শুধু বৌদ্ধদের নয়। এখন এটি সর্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে।

উক্ত অনুষ্ঠানে  এ সময় উপস্থিত ছিলেন আলীকদম জোন কমান্ডার এস, এম মেহেদী হাসান আল আমিন, ইউপি চেয়ারম্যান মো. জামাল উদ্দিন ও আলীকদম থানার ওসি মো. হোসাইন প্রমূখ।

–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly