আগামী ৮ জানুয়ারী বনভান্তের জন্ম দিবসে রাঙামাটিতে ধর্ম পূজাসহ ৭ দিনের ধর্মীয় অনুষ্ঠান

ডেস্ক রিপোর্ট, হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডটকম

zahillbd24.com

আগামী ৮ জানুয়ারী রাঙামাটির রাজ বন বিহারের অধ্যক্ষ ও মহাপরিনির্বানপ্রাপ্ত শ্রীমৎ সাধনানন্দ মহাস্থবির বনভান্তের ৯৫তম জন্ম দিবস উদযাপন উপলক্ষে এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ২ জানুয়ারী থেকে ৭দিনব্যাপী ‘ধর্মপূজা’ এবং ত্রিপিঠক পাঠ উদ্বোধন, পঞ্চশীল গ্রহণ, দানোৎসর্গ এবং শোভাযাত্রা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে পরিষদের মিনি কনফারেন্স রুমে আয়োজিত প্রস্তুতি মূলক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা।

সভায় সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী দিলীপ কুমার চাকমা, জেলা প্রশাসনের সহকারি কমিশনার মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান, পরিষদের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাহিদুল ইসলাম, রাঙামাটি রাজবন বিহারের উপাসক-উপাসিকা কার্যনির্বাহী পরিষদের সহ সভাপতি সুভাষ বড়ুয়া, যুগ্ম সম্পাদক অমিয় খীসা, সদস্য রনেন্দ্র চাকমা, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর স্টেশন অফিসার মোঃ নাজমুল আলম, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শামসুদ্দোহা নূরন্নবী, রাঙামাটি পৌরসভার কাউন্সিলর কালায়ন চাকমা এবং রাঙামাটি সরকারি কলেজের প্রভাষক শান্তনু চাকমা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অংশ গ্রহনকারীরা পূর্বের ন্যায় বনভন্তের জন্মদিবস যাতে নির্বিঘ্নে উদযাপিত হয় সে ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন।

সভায় রাঙামাটি রাজবন বিহারের উপাসক-উপাসিকা কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য রনেন্দ্র চাকমা (রিন্টু) শ্রদ্ধেয় বনভন্তের জন্ম দিবস উদযাপনের বিস্তারিত কর্মসূচি পেশ করেন। সভায় ৮ জানুয়ারী বনভান্তের জন্ম দিন উপলে ২ জানুয়ারী ৭দিনব্যাপী ‘ধর্মপূজা’ এবং ত্রিপিঠক পাঠ উদ্বোধন, পঞ্চশীল গ্রহণ, দানোৎসর্গ এবং রাজবন বিহার হতে ত্রিপিঠক গ্রন্থসম্ভার গাড়িবহরে বিশাল শোভাযাত্রা সহকারে রাঙামাটি শহর প্রদক্ষিণ, ৩ থেকে ৭ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল হতে বিকাল পর্যন্ত ভিক্ষুসংঘের ত্রিপিঠক পাঠ, ৭ জানুয়ারী ভিক্ষুত্ব প্রার্থী শ্রামণদেরকে আনুষ্ঠানিকভাবে উপসম্পদা বা ভিক্ষুত্ব প্রদান, ৮ জানুয়ারি বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পরমপূজ্য বনভান্তের ৯৫তম জন্মদিন উদযাপন। এছাড়া অনুষ্ঠানটি সফল করার ল্য অনুষ্ঠানস্থলের যানজট নিয়ন্ত্রণ, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা প্রদান, স্যানিটেশন, বিদ্যুৎ সরবরাহ এবং পানি সরবরাহ বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, পরমপূজ্য শ্রাবকবুদ্ধ শ্রদ্ধেয় শ্রীমৎ সাধনানন্দ মহাস্থবির (বনভন্তে)র জন্ম দিবস উদযাপনে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন এবং সকলের ঐকান্তিক সহযোগিতায় বিগত বছরের ন্যায় শ্রদ্ধেয় বনভন্তের জন্মদিবস সফলভাবে উদযাপিত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

Print Friendly